Advertisement
২২ জুলাই ২০২৪
Rohit Sharma

চূড়ান্ত অব্যবস্থা, রোহিতরা অভুক্ত! দেওয়া হল ঝাল মাংস, বলা হল স্যান্ডউইচ বানিয়ে নিতে

সিডনির আয়োজকদের ব্যবস্থা করা মধ্যাহ্নভোজ মুখে দিতে পারল না ভারতীয় দল। পেটে খিদে নিয়েই তাঁদের ফিরতে হল ৪২ কিলোমিটার দূরের হোটেলে। খাবারের মানও খারাপ ছিল বলে অভিযোগ।

সিডনিতে মধ্যাহ্নভোজ দেখে মেজাজ হারান রোহিতরা।

সিডনিতে মধ্যাহ্নভোজ দেখে মেজাজ হারান রোহিতরা। ফাইল ছবি।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ২৫ অক্টোবর ২০২২ ২১:০০
Share: Save:

সিডনিতে চূড়ান্ত অব্যবস্থা। অনুশীলনের পর দুপুরের খাবার খেলেন না ক্ষুব্ধ রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলিরা। একটি ইংরাজি সংবাদ পত্রের দাবি, মঙ্গলবার আয়োজকদের মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থা পছন্দ হয়নি ভারতীয় দলের। স্টেডিয়ামে না খেয়ে হোটেলে ফিরে যায় ভারতীয় দল।

ঘণ্টা দুয়েক কঠোর অনুশীলনের পর সাজঘরে ফেরেন রোহিত, কোহলিরা। খিদেয় তখন তাঁদের পেটে ছুঁচোয় ডন দিচ্ছে। স্নান সেরে খেতে যান ভারতীয় দলের ক্রিকেটাররা। কিন্তু খাবার ঘরে গিয়েই মেজাজ হারালেন কোহলি, রোহিতরা। কারণ আইসিসির তরফে যে মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থা করা হয়েছিল, তা পছন্দ হয়নি ভারতীয় দলের। দলের কয়েক জন ক্রিকেটার মাংসের টুকরো মুখে দিয়ে দেখেন, তা প্রচন্ড ঝাল। দলের জন্য যে পরিমাণ খাবার রাখা হয়েছিল, তা অপর্যাপ্ত ছিল বলেও অভিযোগ। তাতেই মেজাজ হারান রোহিত, কোহলিরা। এখানেই শেষ নয়।

খাদ্য তালিকায় ছিল কয়েক রকম ফল এবং স্যান্ডউইচের নানা রকম উপকরণ। খাবার টেবিলে রাখা বোর্ডে লেখা ছিল, ‘নিজের স্যান্ডউইচ নিজে তৈরি করে নিন।’ তা দেখে ক্লান্ত ক্রিকেটাররা বিরক্তি প্রকাশ করেন। আইসিসির ব্যবস্থা করা খাবার না খেয়েই হোটেলে ফিরে যান তাঁরা। ভারতীয় দলের এক সদস্য বলেছেন, ‘‘খাবার মান প্রত্যাশিত ছিল না। তা ছাড়া কঠোর অনুশীলনের পর আমাদের স্যান্ডউইচ তৈরি করে নিতে বলা হয়!’’ এক জনকে বলতে শোনা যায়, ক্রিকেটের আয়ের সিংহভাগই ভারত থেকে আসে। তার পরেও ভারতীয় দলের সঙ্গে আইসিসির এই আচরণ সঙ্গত নয়।

প্রচন্ড খিদে পাওয়ায় দলের কয়েক জন সদস্য ওই খাবারই অল্প করে খেয়ে নেওয়ার কথা বলেন। কিন্তু রাজি হননি বাকিরা। বাধা দেন কোচিং স্টাফরাও। ওই খাবার খেয়ে কোনও ক্রিকেটারের শারীরিক সমস্যা হলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের মধ্যে সমস্যা পড়তে হতে পারে দলকে। শেষ পর্যন্ত সিডনির আয়োজকদের দেওয়া মধ্যাহ্নভোজ না খাওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। কিছুক্ষণ খিদে সহ্য করে হোটেলে ফিরে দুপুরের খাবার খাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন রোহিতরা।

মঙ্গলবারের অনুশীলন বাধ্যতামূলক ছিল না। রোহিত, কোহলি ছাড়াও এ দিন অনুশীলনে আসেন দীনেশ কার্তিক, ঋষভ পন্থ, লোকেশ রাহুল, রবিচন্দ্রন অশ্বিন, শার্দূল ঠাকুর, মহম্মদ সিরাজ এবং দীপক হুডা। বাকিরা হোটেলে বিশ্রাম নেন। কারণ ব্ল্যাকটাউনের হোটেল থেকে সিডনি ক্রিকেট গ্রাউন্ডের দূরত্ব ৪২ কিলোমিটার। নেদারল্যান্ডস ম্যাচের আগে বাড়তি ধকল এড়াতেই অনুশীলন ঐচ্ছিক করে দেওয়া হয়। বুধবার ভারতীয় দল হোটেলের কাছাকাছি একটি অন্য মাঠে অনুশীলন করবে।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE