লালগড় আন্দোলনের ‘পোস্টার বয়’ ছত্রধর মাহাতোর যাবজ্জীবন সাজা খারিজ করে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। লালগড় আন্দোলনের অন্য দুই প্রথম সারির নেতা প্রসূন চট্টোপাধ্যায় এবং রাজা সরখেলকেও বেকসুর খালাস দিয়েছে আদালত। ওই মামলায় ছত্রধর ছাড়া বাকি তিন যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত সুখশান্তি বাস্কে, শম্ভু সরেন এবং সগুন মুর্মুরও সাজা কমিয়ে দিয়েছে ১০ বছরের কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে হাই কোর্ট।

২০১৫-য় তৎকালীন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার কাঁটাপাহাড়ির আইইডি বিস্ফোরণের মামলায় ছত্রধর-সহ ৬ জনকে যাবজ্জীবন সাজার নির্দেশ শোনায় মেদিনীপুর জেলা ও দায়রা আদালত। সেই রায়ের বিরুদ্ধে ২০১৫ সালেই হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ছত্রধর এবং বাকিরা। বুধবার সকালে কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি মুমতাজ খান এবং জয় সেনগুপ্তর ডিভিশন বেঞ্চ এই রায় শুনিয়েছে। আদালতে বিচারপতিরা জানান, রাজা সরখেল এবং প্রসূনের বিরুদ্ধে তদন্তকারীরা যে অভিযোগ এনেছেন তা আদৌ প্রমাণ করতে পারেননি তাঁরা। তাই তাঁদের বেকসুর খালাস করা হল। সাজা কমানো হল ছত্রধর এবং বাকিদের।


আরও পড়ুন: রাতের উড়ানে দিল্লি গেলেন শোভন-বৈশাখী, আজ যোগদান বিজেপিতে
আরও পড়ুন: আসুন মানবিক হই: মুখ্যমন্ত্রী

হাইকোর্টের এই রায়কে স্বাগত জানিয়েছে মানবাধিকার সংগঠন এপিডিআর। সংগঠনের পক্ষে রাংতা মুন্সি  বলেন,‘‘এই সরকার ক্ষমতায় আসার আগে রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। বাস্তবে সেই প্রতিশ্রুতি পালন করেনি। আদালতে প্রমাণ হল যে তাঁদের অনেকেই বেকসুর।’’