মূর্তি ভাঙার তদন্তে সিট, কমিশন সরালো আমহার্স্ট স্ট্রিটের ওসিকে
কমিশন এ দিন ডায়মন্ড হারবারের এসডিপিও মিঠুনকুমার দে-কেও দায়িত্ব সরিয়ে দিয়েছে।
vandalization

—নিজস্ব চিত্র।

বিদ্যাসাগর মূর্তি ভাঙার ঘটনায় বিশেষ তদন্তকারী দল (সিট) গঠন করল কলকাতা পুলিশ। ডেপুটি কমিশনার (উত্তর)-এর নেতৃত্বে এই সিট তদন্ত করবে। তদন্তকারীদের দলে রয়েছেন, আমহার্স্ট স্ট্রিট থানার ওসি, গোয়েন্দা বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার এবং গুন্ডাদমন শাখার অফিসার ইন চার্জ।

বৃহস্পতিবার সিট গঠনের কথা জানান কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান প্রবীণ ত্রিপাঠি। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, কলেজ থেকে ঘটনার সন্ধ্যার একটি সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সংগ্রহ করেছে পুলিশ। সেই সঙ্গে প্রায় ৫০টির মতো ভিডিয়ো বিভিন্ন জায়গা থেকেপুলিশের হাতে এসেছে । এর মধ্যে একটা বড় অংশই সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সংগ্রহ করা। এক তদন্তকারী আধিকারিক বলেন, ‘‘সিসি ফুটেজ থেকে গোটা ঘটনাক্রম আদৌ স্পষ্ট নয়। বিভিন্ন জায়গা থেকে জোগাড় করা ভিডিয়ো মিলিয়েই ঘটনার পুনর্নির্মাণ করার চেষ্টা করা হচ্ছে।’’

 দুপুরে সিট গঠনেক পরেই এ দিন বিকেলে কমিশন আমহার্স্ট স্ট্রিট থানার ওসি কৌশিক দাসকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। কলকাতা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, তাঁর পরিবর্তে নতুন যিনি ওসির দায়িত্ব নেবেন, তিনি ওই সিটের সদস্য হবেন। একই সঙ্গে কমিশন এ দিন ডায়মন্ড হারবারের এসডিপিও মিঠুনকুমার দে-কেও দায়িত্ব সরিয়ে দিয়েছে।

আরও পড়ুন: বঙ্গভবনে ‘নজরবন্দি’ রাজীব, গ্রেফতারি নিয়ে শীর্ষ আদালতের রায় কাল

গোয়েন্দা প্রধান এ দিন ইঙ্গিত দেন যে, আরও ছ’জনের হদিশ মিলেছে যাঁরা ওই দিন ভাঙচুরের ঘটনায় সক্রিয় ছিলেন। এক তদন্তকারী দাবি করেন, ঘটনায় ধৃত ৫৮ জনের মধ্যে যে ১০ জনকে হেফাজতে নেওয়া হয়েছে, তাঁদের জেরা করেই মিলেছে ওই ছ’জনের নাম। পুলিশ সূত্রে খবর, ওই ছ’জনের মধ্যে কলকাতার দু’জন, বাকি চার জন বিভিন্ন জেলা থেকে এসেছিলেন।

আরও পড়ুন: ‘বিপজ্জনক ষড়যন্ত্র’, কমিশনের সিদ্ধান্তের সমালোচনায় মায়া, মমতার পাশে কংগ্রেসও

২০১৯ লোকসভা নির্বাচনের ফল

আপনার মত