• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘কাটমানি’ চেয়েছিলেন দুই তৃণমূল সাংসদ! ম্যাথুর মেল সিবিআইয়ের হাতে

Mathew Samuel
এ বার ম্যাথু স্যামুয়েল সিবিআইকে কয়েকটি ই-মেলের প্রতিলিপি জমা দিলেন।

শুধু স্টিং অপারেশনের ভিডিয়ো ফুটেজ নয়। এবার ম্যাথু স্যামুয়েল সিবিআইকে কয়েকটি ই-মেলের প্রতিলিপি জমা দিলেন। ওই মেলে রাজ্যের দুই তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদের সঙ্গে ‘কাট মানি’-র টাকা লেনদেন নিয়ে কথোপকথন হয়েছে বলে জানা গিয়েছে সিবিআই সূত্রে।

সিবিআই সূত্রে খবর, ম্যাথুর কাছে আরও বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ রয়েছে। যা ম্যাথু প্রকাশ করছেন না। কোনও অজ্ঞাত কারণে ম্যাথু খুব হিসাব কষে সেই তথ্যের কয়েকটি তুলে দিচ্ছেন সিবিআইকে। আর সেখানেই চলে আসছে সম্প্রতি মুকুল রায়ের সঙ্গে কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের ফোনের অডিয়ো টেপ প্রসঙ্গ। সেখানে মুকুল রায় দাবি করেছিলেন, ম্যাথুর কাছে অনেক তথ্যপ্রমাণ রয়েছে। মুকুল রায়ের দাবি যে একদম অমূলক নয়, তাঁর হাতেনাতে প্রমাণ পেল সিবিআই।

তদন্তকারীদের সূত্রে জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাকে ম্যাথু স্যামুয়েল জানিয়েছেন, ২০১৪ সালে স্টিং অপারেশনের সময় তিনি একটি মেল অ্যাকাউন্ট খোলেন। তখন তিনি সন্তোষ শঙ্করণ নামে ব্যবসায়ী হিসাবে পরিচয় দিয়েছিলেন। সেই কারণে ওই নামেই‘সন্তোষশঙ্করণ২০১৪@জিমেল.কম’ মেল আইডি তৈরি করেছিলেন। সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, ম্যাথু তাঁদের জানিয়েছেন, ওই সময় রাজ্যের একাধিক নেতা-সাংসদ ফোনে কথা বলতে অস্বাচ্ছন্দ্য বোধ করছিলেন। সেই কারণে তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার জন্য বিকল্প পথ হিসাবে ই-মেল বেছে নেন।

আরও পড়ুন: সারদার তথ্যে দেরি, প্রশ্নের মুখে অর্থ দফতর

সিবিআই সূত্রে খবর, ম্যাথু দু’জনের সঙ্গে মেলের কথোপকথনের প্রতিলিপি সিবিআই আধিকারিকদের হাতে দিয়েছেন। দু’জনেই সেই সময়ে তৃণমূল সাংসদ ছিলেন। তাঁদের একজন বর্তমানে রাজ্য মন্ত্রিসভার গুরুত্বপূর্ণ সদস্য। দু’টি মেলেই সন্তোষ নামধারী ম্যাথুকে কাজ পাইয়ে দেওয়ার বিনিময়ে ওই দুই সাংসদ ‘কাটমানি’ চেয়েছেন। এক সিবিআই আধিকারিকের ইঙ্গিত, যাঁদের মেল তাঁরা পেয়েছেন, তাঁদের একজনের নাম এখনও তদন্তে সরাসরি উঠে আসেনি।

আরও পড়ুন: ক্ষিণে যোগী, উত্তরে সর্বানন্দ, রাঢ়বঙ্গের রথে সাত দিন কাটাতে চান অমিত শাহ

সিবিআই তদন্তকারীদের দাবি, মেলটি চেন্নাইতে  খোলা হয়েছিল। সেটা আইপি অ্যাড্রেস থেকে জানা গিয়েছে। সিবিআই তদন্তকারীরা, সেন্ট্রাল ফরেন্সিক সায়েন্স ল্যাবরোটারির সাহায্য নিচ্ছেন, ওই দুই সাংসদের ই-মেল আইডির উৎস জানতে। সেই সঙ্গে তাঁরা খতিয়ে দেখবেন ওই আইডিগুলি সঠিক না ভুয়ো। তবে তদন্তকারীদের আশা, এই মেলগুলি গোটা তদন্তে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ প্রমাণ হিসাবে সাহায্য করবে সিবিআইকে।

(বাংলার রাজনীতি, বাংলার শিক্ষা, বাংলার অর্থনীতি, বাংলার সংস্কৃতি, বাংলার স্বাস্থ্য, বাংলার আবহাওয়া - পশ্চিমবঙ্গের সব টাটকা খবর আমাদের রাজ্য বিভাগে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন