নারদ কাণ্ডের তদন্তে ইডিকে সব রকম ভাবে সাহায্য করার আশ্বাস দিলেন সুব্রত মুখোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাটির তলব পেয়ে শুক্রবার সল্টলেকের সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির হয়েছিলেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী। বেলা ১২টা নাগাদ তিনি ঢুকেছিলেন ইডি দফতরে। বেরিয়ে এলেন ৩টে ৫০ নাগাদ। তদন্তকারীদের সব প্রশ্নের জবাবই তিনি দিয়েছেন বলে সুব্রত মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন।

এ দিন ইডি-র দফতরে ঢোকার সময় সুব্রত মুখোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমের কোনও প্রশ্নের জবাব দিতে চাননি। তবে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বেরিয়ে আসার পর তাঁকে পরিচিত মেজাজেই দেখা গিয়েছে। তিনি বলেন, ‘‘তদন্তকারীদের সব প্রশ্নের উত্তরই দিয়েছি। আশা করি তাঁদের সন্তুষ্ট করতে পেরেছি।’’ তদন্তের কাজে সহযোগিতা করতে তিনি প্রস্তুত এবং ইডি যদি আবার তলব করে, তিনি আবার হাজিরা দেবেন বলেও জানিয়েছেন মন্ত্রী।

আরও পড়ুন: ৭ ঘণ্টা জেরার মুখে শোভন

নারদ কাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইডি-র তলব পেয়ে প্রথম বারে কিন্তু সাড়া দেননি সুব্রত মুখোপাধ্যায়। দ্বিতীয় বার তলব পাওয়ার পর তিনি ইডি দফতরে হাজিরা দিতে গেলেন। এই নিয়ে পর পর তিন দিনে রাজ্যের তিন মন্ত্রী ইডি জেরার সম্মুখীন হলেন। বুধবার ইডি দফতরে হাজিরা দিতে গিয়েছিলেন ফিরহাদ হাকিম। বৃহস্পতিবার যান শোভন চট্টোপাধ্যায়।

জেরার আগে মুখ খুলতে রাজি হলেন না সুব্রত মুখোপাধ্যায়, দেখুন ভিডিও:

আরও পড়ুন: ‘ম্যানমেড’ কেন, ব্যাখ্যা সেচমন্ত্রীর

নারদ নিউজের স্টিং অপারেশনের ফুটেজে সুব্রত মুখোপাধ্যায়কে টাকা নিতে দেখা গিয়েছিল। যে ক’জনের নাম নারদ কাণ্ডে জড়িয়েছে, তাঁদের প্রত্যেককেই একে একে তলব করছে ইডি। বুধবার ফিরহাদ হাকিমকে দীর্ঘ জেরার সম্মুখীন হতে হয়। বৃহস্পতিবার শোভন চট্টোপাধ্যায়কে আরও বেশি ক্ষণ ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করেন তদন্তকারীরা। কিন্তু সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের ক্ষেত্রে জেরা দীর্ঘায়িত হয়নি। চার ঘণ্টাও তাঁকে থাকতে হয়নি ইডি দফতরে।