রাজীব কুমারের বর্তমান অবস্থান সম্পর্কে কোনও তথ্যই সিবিআইকে জানাতে পারল না নবান্ন। রাজ্য প্রশাসন সূত্রে খবর, সোমবার বিকেল চারটে নাগাদ বিধাননগর কমিশনারেটের মাধ্যমে রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রর অফিস থেকে সিবিআইকে একটি চিঠি পাঠানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, রাজীব কোথায় আছেন, সে সম্পর্কে ডিজি কিছু জানেন না। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, ডিজি-র অফিস থেকে পাঠানো চিঠিতে স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে যে, রাজীব কুমার ছুটিতে যাওয়ার পর রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে তাঁর কোনও যোগাযোগ হয়নি। ডিজি তাঁর চিঠিতে জানিয়েছেন যে, রাজীবের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু কোনও ভাবে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

রবিবার সিবিআইয়ের তরফ থেকে রাজ্য পুলিশের ডিজিকে দু’টি চিঠি দেওয়া হয়। হাইকোর্টের রায়ের কপি সংযুক্ত করে জানানো হয় যে, তাঁরা রাজীব কুমারকে জেরা করতে চান। অথচ তাঁর সঙ্গে কেন্দ্রীয় ওই গোয়েন্দা সংস্থা কোনও যোগাযোগ করতে পারছে না। তাঁর সমস্ত মোবাইল নম্বর বন্ধ। সিবিআই সূত্রের খবর, ওই চিঠিতে সিবিআই রাজ্য পুলিশের ডিজি-কে জানায়, রাজীব কুমার শনিবার ই-মেল মারফৎ তাদের জানিয়েছেন যে, তিনি ছুটিতে রয়েছেন। সে ক্ষেত্রে ছুটিতে থাকাকালীন রাজীব কুমার কোথায় আছেন এবং কোন ফোন নম্বরে তাঁকে পাওয়া যাবে সেই সংক্রান্ত তথ্য এডিজি সিআইডি রাজীব কুমারের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ হিসাবে ডিজি-র কাছে থাকা স্বাভাবিক। সেই সূত্রেই সিবিআই রাজীব কুমারের হদিশ জানতে চায়। সেই সঙ্গে ডিজি-কে লেখা চিঠিতে সিবিআইয়ের তরফে অনুরোধ করা হয় যেন রাজীব কুমার সোমবার বেলা দুটোর মধ্যে সিবিআই দফতরে পৌঁছন। ওই একই মর্মে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র এবং মুখ্য সচিবকেও সোমবার চিঠি দিয়েছে সিবিআই।

বিধাননগর পুলিশ কমিশনারেটের মাধ্যমে সিবিআই-কে ডিজি-র চিঠি। নিজস্ব চিত্র

সিবিআইকে পাঠানো ডিজির চিঠি প্রসঙ্গে নবান্নের এক শীর্ষ আমলা ইঙ্গিত দেন, রাজ্য প্রশাসন অত্যন্ত কৌশলী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তাঁর মতে, বর্তমান পরিস্থিতিতে রাজীব সম্পর্কে সরাসরি তথ্য দিতে অস্বীকার করলে, রাজীবকে আড়াল করার দায়িত্ব সরাসরি বর্তায় রাজ্য প্রশাসনের উপর। কিন্তু রাজ্য প্রশাসন যোগাযোগ করতে পারেনি বললে, সাপও মরল আবার লাঠিও অক্ষত থাকে। ওই আমলা ইঙ্গিত দেন যে, সিবিআই সোমবার দুটোর মধ্যে রাজীবকে সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির হওয়ার জন্য ডিজিকে লেখা চিঠিতে অনুরোধ করে। এ দিন ডিজি-র এই জবাব রাজীবকে হাজির করানোর দায় থেকেও মুক্ত করল রাজ্য প্রশাসনকে।

আরও পড়ুন: বুধবার মোদী-মমতা বৈঠক দিল্লিতে, কালই রাজধানী যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী​

আরও পড়ুন: রাজীবকে আজও হাজিরা দেওয়াতে পারল না সিবিআই, ফের চিঠি গেল নবান্নে​

সূত্রের খবর, ডিজি-র মতো সিবিআইয়ের চিঠির জবাব দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যসচিব মলয় দে এবং স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। নবান্ন সূত্রে খবর, তিনটি চিঠিরই বয়ান মোটামুটি এক। তিনটি চিঠিতেই সিবিআইকে জানানো হয়েছে যে রাজীব কুমার ১৭ দিনের ছুটি নিয়েছেন। এ মাসের ৯ তারিখ থেকে ২৫ তারিখ পর্যন্ত তিনি ছুটি নিয়েছেন। রাজীবকে সোমবার সিজিও কমপ্লেক্সে হাজির হওয়ার জন্য যে সমন ডিজির কাছে পাঠিয়েছিল সিবিআই, সেই প্রসঙ্গও উল্লেখ করা হয়েছে ওই চিঠিতে। সূত্রের খবর, চিঠিতে বলা হয়েছে যে— রাজীবের ওই সমন তাঁর পার্ক স্ট্রিটের বাসভবনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।