Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২২ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

মদ বিক্রির প্রতিবাদ, বাড়িতে অ্যাসিড-হামলার অভিযোগ

নিজস্ব সংবাদদাতা
অশোকনগর ৩০ জুন ২০২১ ০৭:৫৭
ধৃত নারায়ণ সাধু।

ধৃত নারায়ণ সাধু।

বাড়ির সামনে কিছুদিন ধরে মদ বিক্রি হচ্ছিল বলে অভিযোগ। প্রতিবাদ করেছিলেন এক মহিলা। অভিযোগ, তার জেরে মহিলার বাড়িতে চড়াও হয়ে মদ বিক্রেতা গালাগালিজ করে। মহিলার ঘর লক্ষ্য করে অ্যাসিড ছোড়ে।

সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে অশোকনগর থানার হরিপুর এলাকায়। মহিলার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ মঙ্গলবার নারায়ণ সাধু ওরফে নাড়ু নামে স্থানীয় এক বাসিন্দাকে গ্রেফতার করেছে। ধৃতকে মঙ্গলবার বারাসত জেলা আদালতে তোলা হলে বিচারক পুলিশি হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।

হরিপুরের বাসিন্দা তানিয়া দাস বসুর দাবি, দেড় মাস ধরে নাড়ু সন্ধ্যায় টোটোয় করে মদ এনে তাঁর বাড়ির সামনে দাঁড়ায়। সেখান থেকে মদ বিক্রি করে। টোটোর সিটের নীচে মদ রাখা থাকে। তানিয়া বলেন, ‘‘আমি আপত্তি করে বলেছিলাম, আমার বাড়ির গেটের সামনে এ সব করা যাবে না।’’

Advertisement

অভিযোগ, সোমবার সন্ধ্যায় নাড়ু তানিয়ারা বাড়িতে মদ্যপ অবস্থায় এসে হুমকি দেয়। গালিগালাজ করে। তানিয়া বলেন, ‘‘রাত তখন প্রায় ১১টা। নাড়ু এসে আমাকে বাইরে বেরোতে বলে। আমি দোতলার ঘরে চলে যাই। তখন সে বাড়িতে কিছু একটা ছুড়ে মেরে চলে যায়।’’ পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, সকালে তানিয়ার এক ভাড়াটিয়া টিউবওয়েলে যাচ্ছিলেন। তাঁর পায়ে কিছু লেগে জ্বালা করে। তানিয়া এলে মাটিতে পা দিয়ে পায়ে জ্বালা অনুভব করেন। তানিয়ার কথায়, ‘‘কলের চাতালের সিমেন্ট, ফুল গাছ ঝলসে গিয়েছে। নিশ্চয়ই নাড়ু অ্যাসিড ছুড়েছিল। হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা করিয়েছি। স্বামী-মেয়েকে নিয়ে থাকি। আতঙ্কে রয়েছি।’’

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃত ব্যক্তি এলাকায় টোটো করে ডিম বিক্রি করে। সে মদের নেশায় আসক্ত। তবে টোটোয় করে মদ বিক্রি করত কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। পুলিশের অনুমান, কলতলায় কোনও ধরনের অ্যাসিড পড়ে ছিল। তা থেকেই এই ঘটনা। কী ধরনের অ্যাসিড ছিল, নাড়ুই তা ছুড়েছিল কিনা, সে সব খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

অশোকনগরের বিধায়ক নারায়ণ গোস্বামী বলেন, ‘‘মারাত্মক অভিযোগ। পুলিশের উচিত এই সব অসামাজিক ক্রিয়াকলাপ কঠোর ভাবে বন্ধ করা। আশা করি পুলিশ তা করবে।’’ বাসিন্দারা জানিয়েছেন, অতীতে অশোকনগর-কল্যাণগড় পুর এলাকায় মদ, চোলাই বিক্রির রমরমা ছিল। প্রকাশ্যে মদ বিক্রি হত। সন্ধ্যার পর বাইরে থেকে যুবকেরা আসত মদের নেশা করতে। পুলিশের লাগাতার অভিযানে এখন অবশ্য মদের কারবার অনেক কমেছে বলে জানাচ্ছেন স্থানীয় মানুষ। তবে চোরাগোপ্তা বিক্রি হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, গত ৬ মাসে অশোকনগর থানা এলাকায় প্রায় ২০ জন বেআইনি মদ বিক্রেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। উদ্ধার হয়েছে প্রচুর দেশি মদ। পুলিশের এক কর্তা বলেন, ‘‘বেআইনি মদের বিরুদ্ধে লাগাতার অভিযান চলছে।’’

আরও পড়ুন

Advertisement