Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

৩০ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

দু’দলের গোলমালে রেল-সড়ক অবরোধ

নিজস্ব সংবাদদাতা
২৬ মার্চ ২০১৯ ০১:২৫
বিক্ষোভ: বিজেপির। ভাটপাড়ায়। ছবি: সজল চট্টোপাধ্যায়

বিক্ষোভ: বিজেপির। ভাটপাড়ায়। ছবি: সজল চট্টোপাধ্যায়

তৃণমূল-বিজেপির গোলমালে ফের উত্তপ্ত হল ভাটপাড়া। রবিবার রাত থেকে দু’পক্ষের মধ্যে দফায় দফায় গোলমালের জেরে থানা ঘেরাও, রেল ও সড়ক অবরোধ হল সোমবার। ব্যারাকপুর-নৈহাটির মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ আপ ও ডাউন লাইনে ট্রেন বন্ধ থাকে। সপ্তাহের শুরুতেই অফিস টাইমে রেল অবরোধের জেরে ভোগান্তি হয় যাত্রীদের। এ দিন অবরোধে নেতৃত্ব দেন ব্যারাকপুরের বিজেপি প্রার্থী, সদ্য তৃণমূলত্যাগী অর্জুন সিংহ। পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার প্রতিবাদে থানা ঘেরাও করে বিজেপি।

গোলমালের সূত্রপাত রবিবার রাতে। ভাটপাড়া পুরসভার ১০ এবং ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে পতাকা লাগানো নিয়ে তৃণমূল কর্মীদের সঙ্গে বিজেপির হাতাহাতি বাধে। বিজেপির এক মহিলা কর্মী জগদ্দল থানায় তৃণমূলের দুই কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে শ্লীলতাহানির অভিযোগ করেন।

অর্জুন জানান, কর্মীরা রাস্তায় দলের পতাকা লাগাচ্ছিলেন। সে সময়ে তৃণমূল কাউন্সিলরেরা ওই মহিলা কর্মীকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করা। পুড়িয়ে মারার হুমকি দেয়।

Advertisement

তৃণমূল কাউন্সিলর মনোজ গুহর পাল্টা অভিযোগ, রবিবার রাতে বিজেপির শ’দু’য়েক কর্মী-সমর্থক তাঁর বাড়িতে চড়াও হয়। বাড়িতে বিজেপির পতাকা লাগিয়ে দেয়। প্রতিবাদ করলে তাঁর ভাই মৃত্যুঞ্জয়কে মারধর করে। মহিলাদের শ্লীলতাহানি করা হয়। তৃণমূলের কাউন্সিলর সত্যেন রায়ের অভিযোগ, হামলায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন অর্জুন নিজে। এই ঘটনায় তৃণমূলও জগদ্দল থানায় অভিযোগ করে। অর্জুনের বক্তব্য, ‘‘আমাদের মহিলা কর্মীর শ্লীলতাহানির সময়ে এলাকার বাসিন্দারা তৃণমূল নেতা-কর্মীদের তাড়া করে। তাতে কেউ আহত হতে পারে।’’ কাউন্সিলরের বাড়িতে হামলা প্রসঙ্গে তাঁর বক্তব্য, ‘‘ওই কাউন্সিলরদের বাড়ির সামনে তো পুলিশ পাহারা রয়েছে। হামলা হবে কী করে?’’

পুলিশ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করছে না, এই অভিযোগে রবিবার রাতেই অর্জুনের নেতৃত্বে কয়েকশো বিজেপি কর্মী জগদ্দল থানা ঘেরাও করে। রাস্তায় শুয়ে পড়ে বিক্ষোভ দেখান অর্জুন। পরে পুলিশ আশ্বাসে ঘেরাও ওঠে। সোমবার সকাল থেকে ফের বিক্ষোভ শুরু করেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকেরা। সকাল ৯টা নাগাদ কাঁকিনাড়া স্টেশনের আগে ২৯ নম্বর রেলগেটে অবরোধ করা হয়। আধ ঘণ্টা পরে রেলপুলিশ বিক্ষোভকারীদের তুলে দেয়।

সেখান থেকে লোকজন চলে আসে গোলঘরে। ভাটপাড়া-কাঁকিনাড়া রোড অবরোধ করা হয়। পুলিশ সেখান থেকে তাদের তুলে দিলে ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূলের পার্টি অফিস ঘেরাও করে বিজেপির লোকজন। পরিস্থিতি সামলাতে র‌্যাফ নামানো হয়। বেলার দিকে তৃণমূল প্রার্থী দীনেশ ত্রিবেদীর নেতৃত্বে এলাকায় শান্তি মিছিল বেরোয়। তৃণমূল বিধায়ক পার্থ ভৌমিক বলেন, ‘‘ভাটপাড়ার দু’একটি ওয়ার্ড ছাড়া বিজেপি প্রার্থী কোথাও সাড়া পাচ্ছেন না। সেই হতাশা থেকে গুন্ডামি শুরু করেছেন।’’ এ দিন সন্ধ্যায় অর্জুনের নামে নির্বাচন কমিশনের কাছে নির্বাচনী বিধিভঙ্গের অভিযোগ করেছে তৃণমূল।

আরও পড়ুন

Advertisement