Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

শুভেন্দু অধিকারীর ফ্লেক্স বানানোর অভিযোগ সিপিএম কর্মীর বিরুদ্ধে

তৃণমূলের দাবি, উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটায় বৃহস্পতিবার সিপিএমের এক  কর্মীকে তারা ‘ধরতে’ পেরেছে, যিনি দাদার অনুগামী কাটআউট তৈরি করবার অর্ডার দিয

নিজস্ব সংবাদদাতা
বারাসত ১০ ডিসেম্বর ২০২০ ২০:১২
এই ফ্লেক্স ঘিরেই বিতর্ক গাইঘাটায়— নিজস্ব চিত্র।

এই ফ্লেক্স ঘিরেই বিতর্ক গাইঘাটায়— নিজস্ব চিত্র।

রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে তৃণমূল শুভেন্দু অধিকারীর নামে পোস্টার পড়ছে। যার নিচে লেখা থাকছে ‘দাদার অনুগামী’। কিন্তু বাস্তবে কারা এই দাদার অনুগামী?

তৃণমূলের দাবি, উত্তর ২৪ পরগনার গাইঘাটায় বৃহস্পতিবার সিপিএমের এক কর্মীকে তারা ‘ধরতে’ পেরেছে, যিনি দাদার অনুগামী কাটআউট তৈরি করবার অর্ডার দিয়েছিলেন। যদিও অভিযুক্ত ব্যক্তি নিজেকে ব্যবসায়ী দাবি করে অভিযোগ এড়িয়ে গিয়েছেন।

শুভেন্দু অধিকারীর ছবি দিয়ে দাদার অনুগামীরা ফ্লেক্স, কাটাউট তৈরি করছে সিপিএম কর্মী। সেই অভিযোগ তুলে এক ব্যক্তিকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান তৃণমূলের কর্মীরা। জানতে চান কেন সে এমন কাজ করছে? বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে গাইঘাটা থানার চাঁদপাড়া বি এল আর ও অফিসের সামনে।

Advertisement

তৃণমূল কর্মীদের দাবি, আজ সকালে তাঁরা দেখতে পান চাঁদপাড়া কাঠপট্টি মোড়ে একটি দোকানে ‘দাদার অনুগামী’ লেখা ফ্লেক্সের জন্য কাঠের ফ্রেম তৈরি করছিলেন এক কাঠমিস্ত্রি। কে এই ফ্লেক্স তৈরি করতে দিয়েছে তার কাছে জানতে চান তাঁরা। ওই কাঠমিস্ত্রি তখন পার্থ সাহা নামে এক ব্যক্তির নাম বলেন। পরবর্তীতে তৃণমূলের ছেলেরা পার্থকে ঘিরে রাখে বিক্ষোভ দেখান এবং তার কাছে জানতে চান সিপিএম কর্মী হয়ে কেন শুভেন্দুর প্রচারের ব্যবস্থা করছেন।

তৃণমূলের ছাত্র নেতা তাপস দাসের অভিযোগ, ‘‘ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত দুর্বল করতে এবং তৃণমূলের মধ্যে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব সৃষ্টি করতে সিপিএম এবং বিজেপি টাকার বিনিময়ে পার্থকে দিয়ে কাজ করাচ্ছে।’’

এ বিষয়ে পার্থবাবুর সঙ্গে কথা বলতে গেলে, সংবাদমাধ্যমের ক্যামেরা দেখে তিনি চলে যান। নিজেকে ব্যবসায়ী দাবি করা ছাড়া কোনও কথাও বলতে চাননি। জেলা সিপিএম সম্পাদক মৃণাল চক্রবর্তী বলেন, ‘‘বামপন্থীরা মানুষের রুটি-রুজি-জীবিকার অধিকারের দাবি নিয়ে রাজনীতি করে। ভোটের জন্য মানুষকে বিভ্রান্ত করার রাজনীতি করে না। ঘটনার সঙ্গে সাথে সিপিএমের কোনও যোগ নেই।’’

বিজেপির জেলা সহ-সভাপতি দেবদাস মণ্ডল বলেন , ‘‘বিজেপি-র কারও বিরুদ্ধে চক্রান্ত করার প্রয়োজন হয় না। মানুষ ঠিক করে নিয়েছে আগামী দিনে বিজেপি আসছে। পার্থকে আমরা চিনি না।’’

আরও পড়ুন

Advertisement