Advertisement
০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
I-Pac

এক মাসের ছুটি কাটিয়ে ফের তৃণমূলের হয়ে নামছে আইপ্যাক

এবার ছুটি কাটিয়ে আবারও তাঁরা বাংলার ময়দানে তৃণমূলে হয়ে নামতে মানসিক প্রস্তুতি নিচ্ছে আইপ্যাক।

প্রশান্ত কিশোর।

প্রশান্ত কিশোর। ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৩ জুন ২০২১ ১৫:৪১
Share: Save:

একমাসের ছুটি কাটিয়ে ফের তৃণমূলের জন্য ভোটের ময়দানে নামছে আইপ্যাক। ২ মে বিধানসভা ভোটের ফলাফল ঘোষণার দিনেই আইপ্যাকের স্রষ্টা প্রশান্ত কিশোর আর ভোটকৌশলীর কাজ করবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছিলেন। তবে পাশাপাশিই জানিয়েছিলেন, তাঁর সংস্থা আইপ্যাক আগের মতোই কাজ চালিয়ে যাবে। ঘটনাচক্রে, পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচনের সাফল্যের পরদিনই আইপ্যাকের কর্মরত সমস্ত সদস্যকে সবেতন একমাসের ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়েছিল। চলতি সপ্তাহে সেই ছুটি শেষ হয়েছে। এবার আইপ্যাকের সদস্যরা পরবর্তী নির্দেশের অপেক্ষায়। ভোটে তৃণমূলের জয় নিশ্চিত করতেবাংলার প্রতিটি কোনায় কোনায় গিয়ে প্রায় ৫০০ জনের একটি দল দু’বছর ধরে কাজ করেছিল। তৃণমূলের সাফল্যের পিছনে সেই পরিশ্রম আছে বলেও মনে করেন অনেকে। তাই ভোটপর্ব মিটে যাওয়ার পর কর্মীদের একমাসের ছুটি দিয়েছিল সংস্থা।

Advertisement

কিন্তু ছুটি কাটিয়ে আবার আইপ্যাকের সদস্যরা বাংলার ময়দানে তৃণমূলে হয়ে নামার মানসিক প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আইপ্যাকের এক প্রতিনিধির কথায়, ‘‘আমাদের কাজ নির্ভর করে পোস্টিংয়ের ওপর। যাঁকে যে এলাকার দায়িত্ব দেওয়া হয়, তাঁকে সেই এলাকার দায়িত্ব নিয়ে কাজ করতে হয়। গত দু’বছর আমরা সেই নির্দেশ মেনেই কাজ করেছি। তাই যতক্ষণ না কোনও নির্দিষ্ট জেলা বা এলাকার দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে এবং পাশাপাশি কাজের ধরন বুঝিয়ে দেওয়া হচ্ছে, ততক্ষণ আমাদের অপেক্ষা করতেই হবে।’’আইপ্যাকের প্রতিনিধিদের ধারনা, আগামী শনিবার তৃণমূল ভবনে দলের সাংগঠনিক বৈঠকের পরছবিটা স্পষ্ট হয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের জুলাই মাসে তৃণমূলের ‘পরামর্শদাতা’ হিসেবে নিয়োগের পর প্রশান্তের লক্ষ্য ছিল ‘মিশন২০২১’। রাজনীতির কারবারিদের অনুমান, সেই ‘মিশন’ সফল হওয়ার পর এবার তৃণমূল এবং আইপ্যাকের লক্ষ্য ‘দিল্লি চলো’। ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটে বাংলায় বিজেপি-কে রুখে দেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আগামী লোকসভা ভোটে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইতিমধ্যেই দলের একাংশের তরফে তুলে ধরা শুরু হয়ে গিয়েছে। জাতীয় রাজনীতির পর্যবেক্ষকেরাও তা মেনে নিচ্ছেন। তাই আইপ্যাকের প্রতিনিধিরা মনে করছেন, এবারতাঁদের কাজের ধরন অনেকটাই ভিন্ন হবে।

বাংলায় ক্ষমতা ধরে রাখতে ‘দিদিকে বলো’, ‘বাংলার গর্ব মমতা’, ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’-র মতো কর্মসূচিগুলি মোক্ষমভাবে কাজে লাগিয়েছে আইপ্যাক। কিন্তু সর্বভারতীয় ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিকল্প হয়ে উঠতে যে সম্পূর্ণ অন্য ঘরানার রণনীতি স্থির করা হবে বলেই দাবি আইপ্যাকের একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রের।

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.