Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৮ নভেম্বর ২০২১ ই-পেপার

Babul Supriyo: বিজেপি ‘কাঁকড়ায় ভরা দল’, নাম না করে ফেসবুকে বাবুলের নিশানায় শুভেন্দু

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২২ অক্টোবর ২০২১ ০২:১০
বাবুল সুপ্রিয়।

বাবুল সুপ্রিয়।

আসানসোলের সাংসদ পদ থেকে মঙ্গলবারই ইস্তফা দিয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ফেসবুক পোস্টে নিজের পুরনো দল বিজেপি-র প্রতি ক্ষোভ উগরে দিলেন তিনি। সেখানে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহের নেতৃত্বধীন বিজেপি-কে ‘কাঁকড়ায় ভরা দল’ বলেছেন। পাশাপাশি রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দুর অধিকারীকেও খোঁচা দিতে ছাড়েননি বাবুল। সাংসদ পদ ছাড়লেও মুখ্যমন্ত্রীর ‘অনুপ্রেরণায়’ বাংলার মানুষের জন্য সব সময় ‘এক্সট্রা’ (অতিরিক্ত) কিছু করার চেষ্টা করবেন বলেও জানিয়েছেন বাবুল।

ফেসবুক পোস্টে বাবুল মনে করিয়ে দিয়েছেন জীবনের শুরুতে নেওয়া তাঁর কঠিন সিদ্ধান্তের কথা। ১৯৯২ সালে স্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাঙ্কের নিরাপদ চাকরি ছেড়ে বম্বেতে যান তিনি। সে দিনের মতো আজও তিনি ভয় পান না বলে জানিয়েছেন ওই পোস্টে। কেউ অন্যায় জরিমানা করলে তার বিরুদ্ধে লড়াই করার বার্তা দিয়েছেন। বিজেপি-তে যোগ দিয়ে তিনি যেমন গর্বিত ছিলেন, আড়াই বছরের মেয়াদ বাকি থাকতে সাংসদ পদ ছেড়েও তিনি ‘সমান গর্বিত’— এমনটাই লিখেছেন আসানসোলের প্রাক্তন সাংসদ।

Advertisement

তবে বৃহস্পতিবারের পোস্টে নিজের প্রাক্তন দল বিজেপি এবং সহকর্মীদের উদ্দেশে বিদ্রুপের বাণ ছুড়েছেন। লিখেছেন, ‘কাঁকড়ায় ভরা একটি দল। যারা নিজেদের প্রকৃত কর্মীদের সঙ্গে নির্লজ্জ, বিশ্বাসঘাতকতা এবং বেইমানি করে। আর বহিরাগতদের চাটার্ড প্লেনে চড়ায়।’

নিজে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে তৃণমূলের টিকিটে জেতা শিশির অধিকারী এবং দিব্যেন্দু অধিকারীকে সাংসদ পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরামর্শ দিতে বলেছিলেন শুভেন্দু অধিকারীকে। তার পাল্টা হিসাবে শুভেন্দু বলেছিলেন, ‘‘আগে উনি বলুন পিসি-ভাইপোর সঙ্গে কী ডিলটা হয়েছে। আগে উনি ডিলটা প্রকাশ করুন, তার পর ওঁর সব কথার জবাব দেব।’’ শুভেন্দুর এ কথার জবাব ফেসবুক পোস্টের মাধ্যমে দিয়েছেন বাবুল। নন্দীগ্রামের বিধায়কের নাম না করে তিনি লিখেছেন, ‘বিজেপি থেকে যিনি আমাকে নৈতিকতার জ্ঞান দিচ্ছেন তাঁকে বলব, নিজের বাড়ির অন্দর থেকে পাঠটা শুরু করতে।’ এর পরেই আসানসোলবাসীর উদ্দেশে বাবুলের বার্তা, ‘আপনারা বিজেপি-র ধান্দাবাজদের কথায় কান দেবেন না। আমি আপনাদের সঙ্গে ছিলাম, আছি, থাকব।’ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে ‘সব ভুলে বাংলার মানুষের কাজ মন দিয়ে করতে’ বলেছেন বলেও ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন বিজেপি-র প্রাক্তন এই সাংসদ।


আরও পড়ুন

Advertisement