Advertisement
০১ অক্টোবর ২০২২
Dewandighi Police Station

Murder Dewandighi: রাস্তায় কুপিয়ে খুন যুবককে, কারণ নিয়ে ধন্দ

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিশ্বজিৎ দাস (২৫) নামে ওই যুবকের বাড়ি বর্ধমান শহর লাগোয়া বিজয়রামে। তিনি গাড়ির চালকের কাজ করতেন।

ঘটনাস্থল। নিজস্ব চিত্র

ঘটনাস্থল। নিজস্ব চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
দেওয়ানদিঘি শেষ আপডেট: ১১ অগস্ট ২০২২ ০৮:০২
Share: Save:

সকালে রাস্তায় গলায় ধারালো অস্ত্রের কোপে মৃত্যু হল এক যুবকের। ঘটনাটি ঘটেছে বর্ধমানের দেওয়ানদিঘি থানার কামনাড়া এলাকায়। বুধবার সকালে বর্ধমান ১ ব্লক অফিস লাগোয়া গ্রামে যাওয়ার রাস্তায় এই ঘটনা ঘটে। জেলা পুলিশের আধিকারিকেরা ঘটনাস্থলে যান। অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনার কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ ও নিহতের পরিবার।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিশ্বজিৎ দাস (২৫) নামে ওই যুবকের বাড়ি বর্ধমান শহর লাগোয়া বিজয়রামে। তিনি গাড়ির চালকের কাজ করতেন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ধমান ১ ব্লক ও পঞ্চায়েত সমিতির অফিসের পাশেই সকাল পৌনে ৮টা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে। সেখান থেকে গাড়ি নিয়ে তাঁর ভাড়ায় যাওয়ার কথা ছিল। অভিযোগ, গ্রামের রাস্তায় দাঁড়িয়ে থাকার সময়ে তাঁকে ধীমান ঘোষ নামে এক যুবক ছুরি নিয়ে আক্রমণ করে। গলার ডান দিকে ছুরির কোপ দেওয়া হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তা দিয়ে ছুটতে থাকেন বিশ্বজিৎ। কিছুটা গিয়ে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন তিনি। খবর পেয়ে দেওয়ানদিঘি থানার পুলিশ গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করে বর্ধমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়। সেখানেই তাঁকে মৃত বলে জানানো হয়।

এ দিন হাসপাতালে নিহতের মা রাখি দাস কান্নায় ভেঙে পড়ে বলেন, ‘‘কামনাড়ায় ছেলে গাড়ি রেখে এসেছিল। সকালে আমার কাছে একশো টাকা চেয়ে নিয়ে ও বেরিয়ে যায়। বলে, ভাড়া আছে। তার পরে খবর পাই, কেউ ছেলের গলা কেটে রাস্তায় ফেলে দিয়েছে।’’ তিনি জানান, খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে যান। কিন্তু সেখানে ছেলেকে দেখতে পাননি। পরে শোনেন, ছেলেকে হাসপাতালে নিয়ে গিয়েছে পুলিশ। হাসপাতালে পৌঁছে দেখেন, ছেলের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের ভাই দেবাশিস দাস জানান, দাদা কোনও রাজনৈতিক দলের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না। কারও সঙ্গে শত্রুতার কথাও তাঁদের জানা নেই। তবে তাঁর দাবি, ‘‘বছর দুয়েক আগে বিজয়রামের কিছু ছেলের সঙ্গে দাদার গোলমাল হয়। তার জেরেই এই ঘটনা কি না, জানি না। পুলিশ উপযুক্ত তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি দিক, এটাই আমাদের দাবি।’’

অভিযুক্ত ধীমানের বিরুদ্ধে পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেন নিহতের ভাই দেবাশিস। পুলিশ সূত্রের খবর, তদন্তে জানা গিয়েছে, এ দিন সকালে বিশ্বজিতের সঙ্গে কোনও বিষয় নিয়ে বচসা হয় ধীমানের। ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন ডিএসপি (সদর) অতনু ঘোষাল। তিনি বলেন, ‘‘অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। কেন এই কাণ্ড, অভিযুক্তের পুরনো কোনও অপরাধের রেকর্ড আছে কি না, সব খতিয়ে দেখা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের পরে বিষয়টি পরিষ্কার হবে বলে মনে করা হচ্ছে।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.