×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

কোলিয়ারিতে বিস্ফোরণ, ভেঙে গেল হোটেলের চাল

নিজস্ব সংবাদদাতা
সালানপুর২২ অগস্ট ২০২০ ০৩:৩১
বিপত্তি এখানেই। নিজস্ব চিত্র

বিপত্তি এখানেই। নিজস্ব চিত্র

কোলিয়ারিতে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল। এলাকাবাসীর দাবি, তার জেরে কেঁপে ওঠে এলাকা। ভেঙে পড়ল একটি ভাতের হোটেলের টালির চাল। শুক্রবার দুপুরে পশ্চিম বর্ধমানের সালানপুরের সামডির ঘটনা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসেন ইসিএল ও পুলিশের আধিকারিকেরা। ইসিএল কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়।

এলাকাবাসীর একাংশ পুলিশকে জানান, দুপুর আড়াইটে নাগাদ সামডির ডাবর কোলিয়ারিতে কয়লার স্তর ভাঙার জন্য বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এর জেরে গোটা এলাকা কেঁপে ওঠে। ডাবর কোলিয়ারি থেকে মেরেকেটে একশো মিটার দূরে লহাট মোড়ের ওই ভাতের হোটেলের টালির চাল হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে। এর পরেই এলাকাবাসীর একাংশ রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ শুরু করেন। হোটেলটির মালিক ষষ্ঠী পাল বলেন, ‘‘লকডাউন থাকায় হোটেল বন্ধ ছিল। ভিতরে কেউ ছিলেন না। তাই বিপদ থেকে বাঁচা গিয়েছে।’’

এ দিকে, এলাকায় বিক্ষোভের খবর পেয়ে সাময়িক ভাবে কোলিয়ারি কর্তৃপক্ষ বিস্ফোরণ ঘটানো বন্ধ করে দেন। এলাকায় আসে রূপনারায়ণপুর ফাঁড়ির পুলিশ। সামডিহি পঞ্চায়েতের প্রধান জনার্দন মণ্ডলের অভিযোগ, ‘‘যত বার খনিতে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়, তত বারই এলাকা কেঁপে ওঠে। বারবার দোকানগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ইসিএল-কে বারবার বলার পরেও কোনও পদক্ষেপ করা হয়নি।’’

Advertisement

এ দিন লহাট মোড়ের দোকান মালিকেরা অভিযোগ করেন, তাঁরা বহু বার খনি কর্তৃপক্ষকে দোকান ও জমি অধিগ্রহণ করে ন্যায্য দাম দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন। কিন্তু লাভ হয়নি। বিক্ষোভ চলাকালীন ঘটনাস্থলে আসেন ডাবর কোলিয়ারির ম্যানেজার প্রভাত কুমার। তিনি বলেন, ‘‘আমরা নির্দিষ্ট সময়ে নিয়ম মেনেই খনিতে বিস্ফোরণ ঘটাই। ফলে, দুর্ঘটনার কোনও আশঙ্কা নেই।’’ তবে এ দিনের ঘটনার পরে, তিনি দোকান মালিকদের জন্য খুব দ্রুত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করার আশ্বাস দিয়েছেন। এর পরেই বিক্ষোভ থামে।

Advertisement