Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

১৯ জানুয়ারি ২০২২ ই-পেপার

৫ লক্ষ পেরোল মোট সুস্থ, সক্রিয় রোগী ২০ হাজারেরও কম

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ ২২:৫৪
গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ

বুধবার রাজ্যে করোনাকে হারিয়ে সু্স্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা ৫ লক্ষ ছুঁইছুঁই ছিল। তার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বৃহস্পতিবার রাজ্যে মোট সু্স্থের সংখ্যা ৫ লক্ষ ছাপিয়ে গেল। সেই সঙ্গে সক্রিয় করোনা রোগীর সংখ্যাটাও এক ধাক্কায় নেমে গেল ২০ হাজারের নীচে। গত কয়েক দিন ধরেই ধাপে ধাপে কমছে সংক্রমণের হার। এ দিনও সেই প্রবণতা। কিন্তু দৈনিক মৃতের সংখ্যা ৪০-এর উপরে থাকায় রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতরের চিন্তা রয়েই গেল।

স্বাস্থ্য দফতর প্রকাশিত বৃহস্পতিবারের বুলেটিন অনুযায়ী, রাজ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৪৫ জন। এর জেরে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা এখন দাঁড়িয়েছে ৫ লক্ষ ৩০ হাজার ৪৫৬। বুধবার রাজ্যে নতুন করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ছিল ২ হাজার ২৯৩ জন। এ দিন নতুন আক্রান্তের সংখ্যা গতকালের থেকে কম।

Advertisement

দীর্ঘ দিন ধরেই দৈনিক সুস্থের সংখ্যা দৈনিক আক্রান্তের চেয়ে বেশি। এ দিনও সেই ছবি দেখা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৭৪৭ জন। এই নিয়ে রাজ্যে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ লক্ষ ১ হাজার ৬২৪ জন। রাজ্যে এই মুহূর্তে সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছেন ১৯ হাজার ৫৯৭ জন। গতকাল রাজ্যে সক্রিয় করোনা রোগী ছিল ২০ হাজারের বেশি। এ দিনও রাজ্যে সুস্থতার হারের গ্রাফ ৯৩.৯৪ শতাংশেই রয়েছে।

দীর্ঘ দিন ধরেই দৈনিক সুস্থের সংখ্যা দৈনিক আক্রান্তের চেয়ে বেশি। এ দিনও সেই ছবি দেখা গিয়েছে। বৃহস্পতিবার সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ৭৪৭ জন। এই নিয়ে রাজ্যে করোনা থেকে সুস্থ হয়ে ওঠার সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৫ লক্ষ ১ হাজার ৬২৪ জন। রাজ্যে এই মুহূর্তে সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছেন ১৯ হাজার ৫৯৭ জন। গতকাল রাজ্যে সক্রিয় করোনা রোগী ছিল ২০ হাজারের বেশি। এ দিনও রাজ্যে সুস্থতার হারের গ্রাফ ৯৩.৯৪ শতাংশেই রয়েছে।

(গ্রাফের উপর হোভার বা টাচ করলে প্রত্যেক দিনের পরিসংখ্যান দেখতে পাবেন।)

আরও পড়ুন: পুর-পদ ছাড়তেই পার্টি অফিসে হামলা, তাই দলও ছাড়লেন জিতেন্দ্র

আরও পড়ুন: ‘মাথা ঝোঁকাবে না বাংলা’, আইপিএস অফিসার বদলি প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী​

রাজ্যের করোনা-চিত্র বেশ কিছুটা আশাপ্রদ হলেও, দৈনিক মৃতের সংখ্যায় স্বাস্থ্য দফতরের কর্তাদের কপালে আশঙ্কায় ভাঁজ থেকেই গেল। বৃহস্পতিবারও রাজ্যে ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এই নিয়ে রাজ্যে ৯ হাজার ২৩৫ জন অতিমারির কবলে পড়ে প্রাণ হারালেন। এ দিন উত্তর ২৪ পরগনায় ১২ জন এবং কলকাতায় ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া হাওড়ায় ৭ জন মারা গিয়েছেন। দক্ষিণ ২৪ পরগনাতেও ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবারও রাজ্যে সংক্রমণের হারের গ্রাফ নীচের দিকেই। প্রতি দিন যে সংখ্যক কোভিড টেস্ট হচ্ছে, তার মধ্যে যত শতাংশের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকেই ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। এই হার যত নিম্নমুখী হবে, স্বাভাবিক ভাবেই ততই স্বস্তি। স্বাস্থ্য দফতরের হিসেব অনুযায়ী, এ দিন রাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার ৫.২৯ শতাংশ। এ দিন কোভিড টেস্ট হয়েছে ৪২ হাজার ৪৭৩ জনের।

বৃহস্পতিবারও রাজ্যে সংক্রমণের হারের গ্রাফ নীচের দিকেই। প্রতি দিন যে সংখ্যক কোভিড টেস্ট হচ্ছে, তার মধ্যে যত শতাংশের রিপোর্ট পজিটিভ আসে, তাকেই ‘পজিটিভিটি রেট’ বা সংক্রমণের হার বলা হয়। এই হার যত নিম্নমুখী হবে, স্বাভাবিক ভাবেই ততই স্বস্তি। স্বাস্থ্য দফতরের হিসেব অনুযায়ী, এ দিন রাজ্যে করোনা সংক্রমণের হার ৫.২৯ শতাংশ। এ দিন কোভিড টেস্ট হয়েছে ৪২ হাজার ৪৭৩ জনের।

রাজ্যের জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রমণের ছবিটা এক নজরে দেখে নেওয়া যাক। এ দিন কলকাতায় নতুন করে আক্রান্ত ৫২৪ জন। উত্তর ২৪ পরগনা নতুন সংক্রমিত ৫০৫ জন। এ ছাড়া শতাধিক সংক্রমিত হয়েছেন দক্ষিণ ২৪ পরগনা (১৫৪), নদিয়া (১৪৩), হুগলি (১৪২) এবং হাওড়া (১২৮) জেলায়।

রাজ্যের জেলাভিত্তিক করোনা সংক্রমণের ছবিটা এক নজরে দেখে নেওয়া যাক। এ দিন কলকাতায় নতুন করে আক্রান্ত ৫২৪ জন। উত্তর ২৪ পরগনা নতুন সংক্রমিত ৫০৫ জন। এ ছাড়া শতাধিক সংক্রমিত হয়েছেন দক্ষিণ ২৪ পরগনা (১৫৪), নদিয়া (১৪৩), হুগলি (১৪২) এবং হাওড়া (১২৮) জেলায়।

আরও পড়ুন

Advertisement