Advertisement
২২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
BJP

রামনবমী প্রসঙ্গ টিকিয়ে রাখতে চায় বিজেপি, ‘সত্যের’ খোঁজে বেসরকারি দল যাবে রিষড়া, হাওড়া

বিধানসভা নির্বাচন এবং বগটুইকাণ্ডের পর পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে বিজেপির উদ্যোগে রাজ্যে এসেছিল তথ্যানুসন্ধান কমিটি। আরও এক বার রাজ্যে তারা। খতিয়ে দেখতে চায় অশান্তির পরিস্থিতি।

image of bjp flag

রামনবমীকে ঘিরে রাজ্যের কয়েকটি অংশে যে অশান্তির ঘটনা হয়েছিল, সেই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার আসছে ওই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। উদ্যোগ বিজেপির। ছবি: প্রতীকী

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ০৭ এপ্রিল ২০২৩ ১১:২৯
Share: Save:

আবারও বিজেপির উদ্যোগে রাজ্যে আসছে তথ্যানুসন্ধান কমিটি। রামনবমীকে ঘিরে রাজ্যের কয়েকটি অংশে যে অশান্তির ঘটনা হয়েছিল, সেই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার আসছে ওই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। সূত্রের খবর, শনিবার কমিটির সদস্যেরা যেতে চান রিষড়ায়। রবিবার যেতে চান হাওড়া এবং নবান্নে। এর আগে ভোট পরবর্তী হিংসা এবং বগটুইকাণ্ডের পর সেখানকার পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রাজ্যে বেসরকারি তথ্য অনুসন্ধান কমিটি নিয়ে এসেছিল বিজেপি। সরাসরি দলের নাম না থাকলেও আড়াল থেকে বিজেপি নেতারাই পরিচালনা করেছেন। মনে করা হচ্ছে, এ বার রামনবমী প্রসঙ্গ জিইয়ে রাখতে ফের রাজ্যে তথ্যানুসন্ধান কমিটি নিয়ে আসছে বিজেপি।

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, ৮ এপ্রিল, শনিবার রিষড়ার সন্ধ্যাবাজারে আক্রান্তদের সঙ্গে কথা বলতে চান তথ্যানুসন্ধান কমিটির সদস্যেরা। তার পর এসএসকেএম হাসপাতালে গিয়ে আহতদের সঙ্গে কথা বলতে চান তাঁরা। ৯ এপ্রিল রবিবার, হাওড়ার কিছু জায়গায় স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলতে চান কমিটির সদস্যেরা। ১০ এপ্রিল, সোমবার কমিটির সদস্যেরা চন্দননগর এবং হাওড়া পুলিশকর্তাদের সঙ্গে কথা বলতে পারেন। তার পর নবান্নে স্বরাষ্ট্রসচিবের সঙ্গে কথা আলোচনা হতে পারে বলেও খবর। সব শেষে কমিটির সদস্যের সাংবাদিক বৈঠক করতে পারেন।

তথ্যনুসন্ধান কমিটিতে রয়েছেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি নরসিংহ রেড্ডি, অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস রাজপাল সিংহ, আইনজীবী চারুওয়ালি খন্না, আইনজীবী তথা প্রাক্তন যুগ্ম রেজিস্ট্রার ওমপ্রকাশ ব্যাস, সাংবাদিক সঞ্জীব নায়েক, আইনজীবী ভাবনা বজাজ। এঁরা সকলেই স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘লইয়ার্স ফর জাস্টিস’-এর সদস্য। জানুয়ারির শুরুতেও এই সংগঠনের সদস্যেরা বাংলায় এসেছিলেন। ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন এমন বিজেপি কর্মীদের সঙ্গেই মূলত কথা বলেন তাঁরা। সেই সঙ্গে প্রাথমিকে নিয়োগের পরীক্ষা (টেট)-য় পাশ করা চাকরিপ্রার্থী থেকে আইনি বাধার মুখে পড়া ব্লগার ও ইউটিউবারদের অভিযোগও শোনেন।

একই দল ফেব্রুয়ারি মাসে বীরভূম জেলায় যায়। বগটুই যান ওই প্রতিনিধিরা। রায়গঞ্জে হামলার অভিযোগ ওঠা একটি মন্দির পরিদর্শন করেন তাঁরা। সেখানে স্থানীয় বাসিন্দা এবং মন্দির কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথাও হয়। এ ছাড়াও প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা এবং ভুয়ো ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নিয়ে ওঠা অভিযোগ সম্পর্কে খোঁজখবর নেন।

এ বার রামনবমী পালন ঘিরে অশান্তি নিয়ে তথ্য সংগ্রহের উদ্যোগ। তাতে সরাসরি বিজেপি না থাকলেও গেরুয়া শিবির সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই দলকে সহযোগিতা করার জন্য রাজ্যস্তরের কয়েক জন নেতাকে দায়িত্বও দেওয়া হতে পারে। তবে বিজেপির পক্ষে এখনও পর্যন্ত এ ব্যাপারে সরকারি ভাবে কিছু জানানো হয়নি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE