Advertisement
১৫ এপ্রিল ২০২৪
Job Recruitment

বিনা পরীক্ষায় চাকরি পেয়ে গেলেন ‘হট গার্ল’, তালিকায় উষ্ণতা ছড়ানো মুর্শিদাবাদের ‘কন্যা’ কে?

মেধাতালিকা অনুসারে, ‘হট গার্ল’ মুর্শিদাবাদের রানিনগর বিভাগে আবেদন করেছেন। নিজেকে মহিলা প্রার্থী হিসাবে পরিচয় দিয়েছেন। 'হট গার্ল' ছাড়াও 'চাকরি খবর' নামে প্রার্থী ১০০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন।

A Photograph of post office gds panel

বিনা পরীক্ষায় চাকরি পেয়ে যাওয়া কে এই ‘হট গার্ল’! গ্রাফিক:শৌভিক দেবনাথ।

ভাস্কর মান্না
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৩ মার্চ ২০২৩ ২০:৫৪
Share: Save:

বিনা পরীক্ষায় চাকরি পেয়ে যাওয়া কে এই ‘হট গার্ল’! রাজ্যে নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে একের পর এক ঘটনা সামনে আসার মধ্যেই এই ঘটনা। তবে এটি রাজ্যের চাকরি নয়। কেন্দ্রীয় সরকারের ডাক বিভাগের মেধা তালিকায় ‘হট গার্ল’-এর নাম রয়েছে।

মুর্শিদাবাদের রানিনগর এলাকার বাসিন্দা ‘হট গার্ল' মাধ্যমিক পরীক্ষায় ১০০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন! ফলে ১,৫৩৯ নম্বর স্থানে মেধাতালিকায় তাঁর ঠাঁই হয়েছে। এই নিয়োগে মেধাতালিকায় কোনও প্রার্থী জায়গা করে নিতে পারলে চাকরি পাকা। পরের ধাপে শুধু নথি-সহ তথ্য যাচাই সম্পূর্ণ হলেই চাকরিতে যোগ দিতে পারবেন। ফলে এখন দেখার মেধাতালিকায় উষ্ণতা ছড়ানো মুর্শিদাবাদের 'কন্যাটি' চাকরি নিতে যান কি না? কারণ, চলতি সপ্তাহেই মুর্শিদাবাদ বিভাগে তথ্য যাচাইয়ের জন্য তাঁকে ডাকা হয়েছে।

ফেব্রুয়ারি মাসে পোস্ট অফিসের গ্রামীণ ডাক সেবক পদে প্রায় ৪০ হাজার নিয়োগের কথা জানায় কেন্দ্রীয় সরকার। পশ্চিমবঙ্গ বিভাগে দুই হাজার শূন্যপদে নিয়োগের কথা ঘোষণা করা হয়। এই পদের জন্য যোগ্যতা হিসাবে মাধ্যমিক থাকলেই হয়। মাধ্যমিক সর্বোচ্চ নম্বর প্রাপকরাই মেধাতালিকায় প্রথমে স্থান পান। সেই মতো চাকরিপ্রার্থীরা মাধ্যমিককে প্রাধান্য দিয়েই চাকরিতে আবেদন করেন। গত ফেব্রুয়ারি মাসে এই নিয়োগের আবেদন গ্রহণ করা হয়। ফলপ্রকাশ হয় গত ১০ মার্চ। এই নিয়োগের মেধাতালিকা দেখে অনেকের চক্ষু চড়কগাছ। অনেক প্রার্থীই মাধ্যমিকে ১০০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন। অর্থাৎ, ৭০০ নম্বরের পরীক্ষায় ৭০০ নম্বর পেয়েছেন। তেমনই এক জন হলেন 'হট গার্ল'। প্রকাশিত মেধাতালিকায় এই নামেই তাঁর পরিচয়।

মেধাতালিকা অনুসারে, ‘হট গার্ল’ মুর্শিদাবাদের রানিনগর বিভাগে আবেদন করেছেন। নিজেকে মহিলা প্রার্থী হিসাবে পরিচয় দিয়েছেন। 'হট গার্ল' ছাড়াও 'চাকরি খবর' নামে প্রার্থী ১০০ শতাংশ নম্বর পেয়েছেন। আরও অনেকের ক্ষেত্রে এমনটা দেখা গিয়েছে। পোস্ট অফিস সূত্রে খবর, এই সব প্রার্থীদের তথ্য ভুল বলেই ধরা হয়। কারণ, মেধাতালিকায় আসার জন্য অনেকে ভুল তথ্য দিয়ে আবেদন করেন। যে হেতু আবেদনের সময় তথ্য পরীক্ষার সুযোগ থাকে না। তাই এই সব প্রার্থীরা মেধাতালিকায় চলে আসেন। তবে চাকরি দেওয়ার সময় সব নথি যাচাই করেই চাকরি দেওয়া হয়। ফলে যোগ্যরাই সুযোগ পাবেন। তার পর বাকি শূন্যপদের জন্য আরেকটি নতুন মেধাতালিকা প্রকাশ করা হবে। তাই অযোগ্যদের সুযোগ পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE