Advertisement
২৯ নভেম্বর ২০২২
Durga Puja 2022

দুর্গা প্রতিমার হাতে তৃণমূলের পতাকা ধরালেন গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য! বিতর্কে জড়ালেন হুগলির নেতা

ঘটনার সূত্রপাত প্রতিমা মণ্ডপে নিয়ে যাওয়ার সময়। সেই সময় ভ্যানে চাপানো দুর্গা প্রতিমার হাতে তৃণমূলের পতাকা ধরিয়ে দেন গুড়াপের হাসামপুরের বাসিন্দা তথা তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য লক্ষ্মণ মণ্ডল।

দেওয়া হয়েছে দুর্গার হাতে তৃণমূলের পতাকা, যা নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

দেওয়া হয়েছে দুর্গার হাতে তৃণমূলের পতাকা, যা নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক। — নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
গুড়াপ শেষ আপডেট: ০১ অক্টোবর ২০২২ ১২:২৭
Share: Save:

ত্রিশূলের বদলে দুর্গা প্রতিমার হাতে দলীয় পতাকা ধরিয়ে দিলেন তৃণমূল নেতা। আর এই ঘটনা ঘিরে দানা বেঁধেছে বিতর্ক। শুক্রবার এই ঘটনা ঘটেছে হুগলির গুড়াপের হাসামপুরে। এই ছবি প্রকাশ্যে আসতেই সমালোচনা শুরু করেছে বিজেপি।

Advertisement

ঘটনার সূত্রপাত প্রতিমা মণ্ডপে নিয়ে যাওয়ার সময়। সেই সময় ভ্যানে চাপানো দুর্গা প্রতিমার হাতে তৃণমূলের পতাকা ধরিয়ে দেন গুড়াপের হাসামপুরের বাসিন্দা তথা তৃণমূলের পঞ্চায়েত সদস্য লক্ষ্মণ মণ্ডল। কেন প্রতিমার হাতে দলীয় পতাকা দিলেন, এই প্রশ্নের উত্তরে লক্ষ্মণের সাফাই, ‘‘বারোয়ারি পুজোগুলিকে ৬০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া হচ্ছে। সেই জন্য আজ আমরা পুজো করতে পারছি। দিদি উন্নয়ন করেছেন বলে আমরা দলীয় পতাকা প্রতিমার হাতে দিয়েছি। আমরা চাই, দিদি এমন উন্নয়নমূলক কাজ চালিয়ে যান।’’

এই ঘটনা ঘিরে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এর সমালোচনা করে বিজেপির হুগলি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি তুষার মজুমদার বলেন, ‘‘টাকা দিয়েছেন বলে ওঁরা যা খুশি তাই করবেন তা তো হতে পারে না। মানুষ তো টাকা চায়নি। উনি দিয়েছেন টাকা। মায়ের হাতে খড়্গ থাকবে, সেখানে তৃণমূলের পতাকা কেন?’’ এ নিয়ে লক্ষ্মণের বিরুদ্ধে গুড়াপ থানায় অভিযোগ জানিয়েছে বিজেপি। পুলিশ উপযুক্ত পদক্ষেপ না নিলে আমরা আন্দোলনের পথে যাওয়ার হুঁশিয়ারিও দেওয়া হয়েছে।

এ নিয়ে তৃণমূলের রাজ্য সাধারণ সম্পাদক দিলীপ যাদব বলেন, ‘‘আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে যা মানায় তার বাইরে কিছু করা উচিত নয়। আবার এ সব নিয়ে রাজনীতি করাও উচিত নয়। দুটোই বেমানান। এখন পুজো চলছে। আমরা সকলে উৎসবে-আনন্দে মাতোয়ারা হয়ে থাকব। ব্যক্তি পরিচয়ই এই পুজোয় গুরুত্বপূর্ণ। সংবাদমাধ্যমও কিছুটা উৎসাহিত হয়ে এই বিষয়গুলি করে। আমি সংবাদমাধ্যমকে তো কোনও পরামর্শ দিতে পারি না। তবে আমার মতে, এখন পুজো প্রাঙ্গণে কাপড় দেওয়া, খাওয়ানো, ভাল প্রতিমা, আলোকসজ্জা, নিষ্ঠাভরে পুজো এ সবকে আজকের দিনে গুরুত্ব দেওয়া উচিত।’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.