Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪
Extra marital Affair

Extramarital Affair: স্বামী আন্দামানে, বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে ২ বছরের শিশুকন্যাকে খুন মায়ের!

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার পিংলা থানার উত্তরবাড় গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ দু’জনকে আটক করেছে।

শিশুকে খুনের অভিযোগ মায়ের বিরুদ্ধে।

শিশুকে খুনের অভিযোগ মায়ের বিরুদ্ধে। —নিজস্ব চিত্র।

নিজস্ব সংবাদদাতা
পিংলা শেষ আপডেট: ১১ ডিসেম্বর ২০২১ ২১:২০
Share: Save:

বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কের জেরে বালিশ চাপা দিয়ে দু’বছরের শিশুকন্যাকে খুনের অভিযোগ উঠল মায়ের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে পিংলা থানা এলাকায়। পুলিশ অভিযুক্ত মা এবং তাঁর প্রেমিককে আটক করেছে।
পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার পিংলা থানার উত্তরবাড় গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। ময়না থানার আসনান গ্রামের বাসিন্দা পূজা জানার বিয়ে হয়েছিল পিংলার উত্তরবাড় গ্রামের দেবাশিস জানার সঙ্গে। দেবাশিস কর্মসূত্রে আন্দামানে থাকেন। সেখানে তিনি রাজমিস্ত্রির কাজ করেন। অভিযোগ, বিয়ের এক বছর পর এই উত্তরবাড় গ্রামেরই বাসিন্দা দেবাশিস মণ্ডলের সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে পূজার। আর সেই সুবাদেই তাঁর বাড়ির সামনে চলে যেত প্রেমিক দেবাশিস। শনিবার দুপুরের পর গ্রামের বাসিন্দারা জানতে পারেন বালিশ চাপা পড়ে পূজার দু’বছরের শিশুকন্যার মৃত্যু হয়েছে। বাড়ির পরিবেশ স্বাভাবিক ভাবেই শোকাচ্ছন্ন হয়ে পড়ে। কিন্তু কয়েক জনের সন্দেহ হয়েছিল পূজার উপর। এর পর তাঁরা পূজাকে চাপ দিলে তিনি নিজেই সন্তানকে খুনের কথা স্বীকার করেন বলে জানা গিয়েছে। পূজার বোন কোয়েল বর্মণ বলেন, ‘‘দিদি স্বীকার করেছে খুনের কথা। ও বলে, ‘আমি বালিশ চাপা দিয়ে মেরে দিয়েছি। দেবাশিসের কথা শুনে মেরে দিয়েছি।’ এটা দিদি আমাকে বলেছে। আমার দিদির জেল বা ফাঁসি চাই।’’

পিংলা থানার পুলিশ পূজা এবং দেবাশিসকে আটক করেছে। পূজার বক্তব্য, ‘‘ওকে বালিশ চাপা দিয়েছিলাম। আমি বুঝতে পারিনি মেয়েটা মারা যাবে। দেবাশিস বাড়ির সামনে আসত। ফোন করত।’’ পূজার প্রেমিক দেবাশিস বলেন, ‘‘আমার নাম কেন জড়ানো হয়েছে তা জানি না।’’

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

Extra marital Affair Murder child
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE