×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২০ জানুয়ারি ২০২১ ই-পেপার

৭ বছর প্রেম-সহবাস, তবু বিয়েতে ‘না’, প্রেমিকের বাড়ির সামনে অনশনে তরুণী

নিজস্ব সংবাদদাতা
সাগরদিঘি২৯ নভেম্বর ২০২০ ১৫:০৪
সাগরদিঘিতে অনশনে রায়গঞ্জের তরুণী। —নিজস্ব চিত্র

সাগরদিঘিতে অনশনে রায়গঞ্জের তরুণী। —নিজস্ব চিত্র

 ৭ বছর ধরে প্রণয়ের সম্পর্ক। যুবক-যুবতীর তো বটেই দুই পরিবারের মধ্যেও সম্পর্ক, আসা-যাওয়া ছিল। বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিক বার সহবাসও হয়েছে বলে অভিযোগ যুবতীর। কিন্তু এখন প্রেমিক বেঁকে বসায় বিয়ের দাবিতে অভিযুক্ত প্রেমিকের বাড়ির সামনে অনশনে বসেছেন এক তরুণী।

মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘির সদানন্দ ঘোষের বাড়ির সামনে বসে উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জের ওই তরুণীর দাবি, বিয়ে না করা পর্যন্ত তিনি সেখান থেকে যাবেন না। সদানন্দর বাড়ির লোকজন ভিতর থেকে তালাবন্ধ করে বসে আছেন। তবে সদানন্দ ঘরছাড়া। পরিবারের সদস্যরাও কেউ মুখ খুলতে চাননি।

খবরের কাগজ পেতে বসে এক তরুণী। পাশে একটি প্ল্যাকার্ডে লেখা, ‘বিয়ের জন্য অনশন’। নীচে একটু ছোট হরফে লেখা, ‘৭ বছরের প্রেম’। রবিবার সাতসকালে এমন ছবি দেখে কিছুটা তাজ্জব বনে যান এলাকাবাসী। খবর পাঁচকান হতেই এলাকায় ভিড়ও জমান কৌতূহলী কয়েক জন।

Advertisement

আরও পড়ুন: মন্ত্রিত্ব ছাড়লেও শুভেন্দু ‘গুরুত্বপূর্ণ’ ব্যক্তি, তাই বহাল নিরাপত্তা

অনশনে বসা তরুণী বলেন, ‘‘৭ বছর ধরে আমাদের প্রেম। দুই বাড়ির লোকজনও জানে। আমাদের মধ্যে শারীরিক সম্পর্কও হয়েছে। অথচ এখন সদানন্দ বিয়ে করা তো দূর, আমাকে চিনতেই পারছে না। ওঁর বাড়ির লোকজনও অসহযোগিতা করছেন।’’

আরও পডুন: বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাস, মারাত্মক অভিযোগ পাকিস্তান অধিনায়কের বিরুদ্ধে

কেন বেঁকে বসলেন সদানন্দ? তরুণীর দাবি, ‘‘ওঁর অন্য জায়গায় বিয়ে ঠিক করেছেন বাড়ির লোকজন। সেই কারণেই এমন ব্যবহার।’’ তাঁর দাবি, “যত ক্ষণ না সদানন্দ আমাকে গ্রহণ করছে, এখান থেকে আমি উঠছি না।’’

 

 

Advertisement