×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

০৩ মার্চ ২০২১ ই-পেপার

রাসচক্র ঘোরাতে ভিড়, চিন্তা সংক্রমণে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কোচবিহার ০১ ডিসেম্বর ২০২০ ০৪:৫৫
আরাধ্য: রাসচক্র ঘোরাতে ভক্তদের ভিড় মদনমোহন মন্দিরে। সোমবার কোচবিহারে। নিজস্ব চিত্র

আরাধ্য: রাসচক্র ঘোরাতে ভক্তদের ভিড় মদনমোহন মন্দিরে। সোমবার কোচবিহারে। নিজস্ব চিত্র

রাসযাত্রার প্রথম দিনেই উপচে পড়ল ভিড়। অভিযোগ, সামাজিক দূরত্ববিধি কার্যত কেউ মানলেন না। রাসচক্র ঘোরানোর জন্য চলল হুড়োহুড়ি। রবিবার এমনই পরিস্থিতি দেখে উদ্বেগ বাড়ল স্বাস্থ্য দফতরের।

রাসযাত্রায় এমন পরিস্থিতির জেরে করোনা রুখতে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আবেদন জানালেন স্বাস্থ্যকর্তারা। একই ভাবে কোচবিহার দেবোত্তর ট্রাস্ট বোর্ডের তরফে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রচার করা হয়।

স্থানীয় সূত্রে খবর, এ বার কোচবিহারে রাসযাত্রায় কোনও মেলা বসেনি। কয়েকটি দোকান বসেছে। একটি ছোট আকারে হস্তশিল্প মেলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তা অবশ্য এখনও জমে উঠেনি। মদনমোহন মন্দিরে নিয়ম মেনেই রাসযাত্রা শুরু হয়েছে। সেখানে ছোট আয়োজনে ভাগবতপাঠও করা হবে। কোচবিহার জেলা প্রশাসনের এক আধিকারিক বলেন, “ভিড় যাতে না হয় সে জন্য নানা পদক্ষেপ করা হয়েছে।”

Advertisement

রবিবার রাতে নিয়ম মেনে রাসযাত্রার পুজো করেন কোচবিহারের জেলাশাসক পবন কাদিয়ান। তিনি রাসচক্র ঘুরিয়ে উৎসবের সূচনা করেন। সেখানে রাজ্যের মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ উপস্থিত ছিলেন। অভিযোগ, জেলাশাসক রাসচক্র ঘোরানোর পর থেকে হুড়োহুড়ি পড়ে যায়। সেই সময় বাইরে লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন কয়েক হাজার মানুষ। তাঁদের জন্য বাঁশের ব্যারিকেড তৈরি করা হয়েছে। সেই ব্যারিকেড ধরেই পুলিশ ও মহিলা আলাদা আলাদা দাঁড়ান। কিন্তু অভিযোগ, সেখানে কোনও সামাজিক দূরত্ববিধি ছিল না।

স্বাস্থ্য দফতরের এক কর্তা বলেন, “সতর্ক না হলে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আটকানো সম্ভব হবে না। বাসিন্দারা প্রত্যেকেই এই বিষয়ে সচেতন বলেই মনে করছি। সে ভাবে প্রচারও করা হচ্ছে।”

Advertisement