Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৭ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

পাহাড়ে ঘর গোছাচ্ছে সব পক্ষ

জোটসঙ্গীদের ভরসায় পাহাড় জয়ের পরে সেখানে দলের ভিত্তি মজবুত করতে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করেছে বিজেপি। সূত্রের খবর পাহাড়ে নতুন পরিকল্পনায় কাজ শুর

শুভঙ্কর চক্রবর্তী
দার্জিলিং ১৭ জুন ২০১৯ ০৪:২১
Save
Something isn't right! Please refresh.
দার্জিলিংয়ে বাড়ছে রাজনৈতিক তৎপরতা।

দার্জিলিংয়ে বাড়ছে রাজনৈতিক তৎপরতা।

Popup Close

দার্জিলিংয়ে ‘পুলিশি অত্যাচারের’ প্রতিবাদে রাজ্যের বাইরে বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করল বিমলপন্থী মোর্চা। দিল্লি, হরিয়ানা, গ্যাংটক ও দেশের আরও নানা প্রান্তে বিক্ষোভ দেখান হবে বলে দাবি তাদের। পাহাড়েও ধীরে ধীরে সুর চড়াচ্ছেন বিমল শিবিরের নেতারা। দলের মুখপাত্র বিপি বজগাইয়ের জামিন হতেই দার্জিলিং, কার্শিয়াং ও কালিম্পংয়ে একাধিক সভার আয়োজন করেছেন বিমলপন্থীরা।

পাহাড়ে সংগঠন সাজাচ্ছে জিএনএলএফ-ও। সূত্রের খবর, ঘরে বসে যাওয়া সুবাস ঘিসিং জমানার নেতাদের ফের ময়দানে নামাচ্ছেন মন ঘিসিংরা। পুরনো নেতাদের সঙ্গে ইতিমধ্যে একাধিক ঘরোয়া বৈঠক করেছেন তাঁরা। অন্যদিকে সংবাদমাধ্যমে বিবৃতি দিলেও সেভাবে দলীয় কর্মসূচি করতে দেখা যাচ্ছে না বিনয় তামাং ও তাঁর শিবিরকে।

জোটসঙ্গীদের ভরসায় পাহাড় জয়ের পরে সেখানে দলের ভিত্তি মজবুত করতে ইতিমধ্যেই কাজ শুরু করেছে বিজেপি। সূত্রের খবর পাহাড়ে নতুন পরিকল্পনায় কাজ শুরু করেছে আরএসএস। বিমল শিবিরের এক নেতার কথায়, ‘‘বিজেপির সাহায্য দরকার ঠিকই। তবে নিজেদের সাংগঠনিক ভিত্তি নড়বড়ে করা যাবে না কোনওভাবে। দল দুর্বল হলে তখন বিজেপিও আর পাত্তা দেবে না। সংগঠন মজবুত করতেই নানা কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে। জোটধর্ম বজায় রেখেই কাজ করব আমরা।’’

Advertisement

দলের নেতাদের পুলিশ মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে হয়রান করছে, এই অভিযোগে রবিবার নয়াদিল্লির যন্তরমন্তরে বিক্ষোভ দেখান বিমলপন্থী মোর্চার সমর্থকরা। হরিয়ানাতে এ দিন মোমবাতি মিছিল করা হয় বলে মোর্চা সূত্রে জানা গিয়েছে। দার্জিলিংয়েও এ দিন বিমলের সমর্থকরা নিজেদের বাড়ির সামনে মোমবাতি জ্বালিয়ে প্রতিবাদ করেন। বিপি বজগাই বলেন, ‘‘আমরা দার্জিলিং ও কালিম্পং দুই জেলায় বুথওয়ারি সভা করব। দলের অবস্থান, পরবর্তী পদক্ষেপ, কর্মসূচি নিয়ে সেখানে আলোচনা করা হবে।’’

জিএনএলএফ-ও পাহাড়ের বিভিন্ন এলাকায় সভা শুরু করেছে। পাহাড়ে সুবাস ঘিসিংয়ের নামে ফুটবল ম্যাচের মাধ্যমে জনসংযোগ বাড়াতে উদ্যোগী হয়েছে তাঁরা। দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অজয় এডওয়ার্ড বলেন, ‘‘পুরনো নেতারা দলে ফিরতে শুরু করেছেন। যারা ভয়ে বসে গিয়েছিলেন তাঁরাও ফিরছেন। আমরা সুবাস ঘিসিংয়ের পথে পাহাড়কে নতুনভাবে দিশা দেখাতে সংগঠন সাজানোর কাজ শুরু করেছি।’’

এই পরিস্থিতিতে কী করছে বিনয়ের শিবির? বিনয় তামাং বলেন, ‘‘আমরা পিছিয়ে নেই। আমরা পরিস্থিতি বুঝে পরিকল্পনা করে কাজ করছি। পাহাড়ের উন্নয়নকে হাতিয়ার করেই আমরা এগিয়ে যেতে চাইছি। দলের ঘরোয়া সভাও হচ্ছে। সঠিক সময়েই বড় কর্মসূচি ঘোষিত হবে।’’



Something isn't right! Please refresh.

Advertisement