Advertisement
০২ এপ্রিল ২০২৩
CPM

SFI: স্বাধীনতা দিবস পালন! নয়ের দশকের গানের অ্যালবাম ফেরাচ্ছে সিপিএমের ছাত্রফ্রন্ট

অ্যালবাম তৈরির জন্য গঠিত কমিটির উপদেষ্টা করা হয় সলিল চৌধুরীকে। আবহ সঙ্গীতের দায়িত্ব পান ভি বালসারা। যন্ত্রসঙ্গীতে কল্যাণ সেন বরাট।

স্বাধীনতা দিবস পালনে ফেরানো হচ্ছে  এসএফআইয়ের ৯০-এর দশকের গানের সংকলন।

স্বাধীনতা দিবস পালনে ফেরানো হচ্ছে এসএফআইয়ের ৯০-এর দশকের গানের সংকলন। ফাইল চিত্র

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা শেষ আপডেট: ১৪ অগস্ট ২০২১ ১৩:০২
Share: Save:

দেশ জুড়ে এই প্রথম স্বাধীনতা দিবস পালন করবে সিপিএম। দেশের ৭৫তম স্বাধীনতা দিবস পালনে এবার নয়ের দশকে ছাত্র সংগঠনের তৈরি গানের সংকলন ফিরিয়ে আনল তারা। ১৯৯২ সালে এসএফআইয়ের রাজ্য সম্পাদক ছিলেন প্রাক্তন সাংসদ সুজন চক্রবর্তী। সেই সময় সিপিএমের ছাত্র সংগঠনের উদ্যোগে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে একটি গানের অ্যালবাম তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এসএফআইয়ের পশ্চিমবঙ্গ শাখার উদ্যোগে শুরু হয়েছিল গানের ক্যাসেট তৈরির কাজ। এই অ্যালবাম তৈরির জন্য গঠিত কমিটির উপদেষ্টা করা হয়েছিল শিল্পী সলিল চৌধুরীকে। আবহ সঙ্গীতের দায়িত্ব পান ভি বালসারা। যন্ত্রসঙ্গীতের দায়িত্বে ছিলেন কল্যাণ সেন বরাট। গীতিকার শুভ দাশগুপ্ত। দিকপাল সঙ্গীত শিল্পীদের সমন্বয়ে তৈরি হয় ক্যাসেটটি। নাম দেওয়া হয় ‘এ দেশ তোমার আমার’। প্রায় তিন দশক পর সেই গানের ক্যাসেটটি ফিরিয়ে আনা হয়েছে। নেটমাধ্যমের যুগে অডিও ক্যাসেটের চল আর নেই। তাই নেটমাধ্যমেই গানের সংকলন ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

Advertisement

নয়ের দশকে ভারতের কমিউনিস্ট আন্দোলনের অন্যতম জনপ্রিয় নেতা ছিলেন তৎকালীন মুখ্যমন্ত্রী জ্যোতি বসু। সেই সময় ছাত্র সংগঠনের পক্ষ থেকে জ্যোতিবাবুকে ক্যাসেটের জন্য শুভেচ্ছা বার্তা দিতে অনুরোধ করা হয়েছিল। ছাত্রদের দাবি মেনে, একটি ‘ভয়েস অডিও’বার্তা হিসেবে দিয়েছিলেন তিনি। সেই বার্তাটি গান শুরুর আগেই ক্যাসেটিতে যুক্ত করাও হয়েছিল। যেহেতু স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে তৈরি হয়েছিল ক্যাসেটটি, তাই ছাত্র সংগঠনের সদস্যদের মধ্যে আলোচনা করে ঠিক করা হয় জীবিত কোনও স্বাধীনতা সংগ্রামীকে দিয়ে ক্যাসেটের উদ্বোধন করানো হবে। ঠিক হয় ক্যাসেটটি উদ্বোধন করবেন স্বাধীনতা সংগ্রামী গণেশ ঘোষ। কিন্ত, স্বাধীনতা দিবসের আগেই অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এসএফআই নেতৃত্বের অনুরোধে ক্যাসেটটির উদ্বোধন করেছিলেন গণেশ। এসএফআই রাজ্য নেতৃত্বে নির্দেশে সেই বছর স্বাধীনতা দিবসের দিন প্রত্যেকটি শাখায় এই ক্যাসেটটি বাজানো হয়েছিল। প্রকাশিত হওয়ার সাতদিনের মধ্যে ৮০ হাজার ক্যাসেট বিক্রি হয়েছিল বলে দাবি সিপিএম নেতৃত্বের।

কেন এত বছর পর পুরনো এই গানগুলিকে আবারও জনসমক্ষে আনা হল? প্রাক্তন সাংসদ সুজন বলেছেন, ‘‘যখন গানের ক্যাসেটটি প্রকাশিত হয়েছিল, তখনও বিজেপি দিল্লির ক্ষমতায় আসেনি। কিন্তু সেই সময় থেকেই তারা দেশের সাম্প্রদায়িক বাতাবরণ তৈরির কাজ শুরু করে দিয়েছিল। পাশাপাশি, অর্থনৈতিক সংস্কারের নামে ডাংকেল প্রস্তাব আনা হয়েছিল। যার ঘোরতর বিরোধী ছিল বামেরা। সেই সময় স্বাধীনতা দিবসের আগে দেশের সার্বভৌমত্ব, স্বাধীনতা ও ঐক্য ধরে রাখতেই আমরা এই প্রয়াস নিয়েছিলাম। তখন এই গানের ক্যাসেটটি সময়োপযোগী হয়েছিল। এখন তো দেশের ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি। তাদের নীতি যেমন দেশের মানুষের মধ্যে বিভাজন তৈরি করছে, তেমনই অর্থনৈতিক ক্ষতি করছে।’’ তিনি আরও বলেন, ‘‘এবার পার্টি স্বাধীনতা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। স্বাধীনতা আন্দোলনে কমিউনিস্টরা কীভাবে নিজের রক্ত দিয়েছে, দেশের জন্য আত্মবলিদান করেছেন, তাও জনসমক্ষে তুলে ধরার সময় এসেছে। এই সমস্ত ভাবনা থেকেই আমরা ক্যাসেটটি তৈরি করেছিলাম। সেইসব বিষয়গুলি আবার জনগণকে জানাতে গানগুলি ফিরিয়ে আনা হয়েছে।’’

Advertisement
(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.