Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে খোঁচা সৌমিত্রকে, কোন্নগরে বিজেপির বাইক মিছিল ঘিরে চরম উত্তেজনা

শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে তুলনা টেনেও সৌমিত্রকে কটাক্ষ করা হয় নানা পোস্টারে। তা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে তরজা চরমে পৌঁছেছে।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কোন্নগর ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৫:২৪
Save
Something isn't right! Please refresh.
এমনই পোস্টার চোখে পড়েছে কোন্নগরের বিভিন্ন জায়গায়।

এমনই পোস্টার চোখে পড়েছে কোন্নগরের বিভিন্ন জায়গায়।
—নিজস্ব চিত্র।

Popup Close

সৌমিত্র খাঁ-র নেতৃত্বে বিজেপি-র বাইক মিছিল ঘিরে চরম উত্তেজনা কোন্নগরে। বিজেপি-কে কালো পতাকা দেখানোর অভিযোগও উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। মিছিল চলাকালীন রাস্তায় দু’পক্ষের মধ্যে ঝামেলাও বাধে। শেষমেশ আসরে নামে পুলিশ। ব্যারিকেড বসিয়ে দু’পক্ষকে আলাদা করতে হয়। তবে ঝামেলা থামেনি সেখানেই। বরং বিজেপি-র স্লোগানের পাল্টা স্লোগান তোলে তৃণমূল। এমনকি একটি জনপ্রিয় বাংলা গানের অনুকরণে ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কটাক্ষ করা হয় সৌমিত্রকে। এলাকার ইতিউতি ছেয়ে যায় সেই পোস্টারে। শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে তুলনা টেনেও সৌমিত্রকে কটাক্ষ করা হয় নানা পোস্টারে। তা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে তরজা চরমে পৌঁছেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, বিজেপি-র এই বাইক মিছিলে অনুমোদন ছিল না তাদের। তা সত্ত্বেও শনিবার জোড়াপুকুর এলাকা থেকে চাঁপদানি পর্যন্ত বাইক মিছিলের কর্মসূচি নিয়ে কোন্নগরে রাস্তায় নামে বিজেপি। দলের সাংসদ তথা যুব মোর্চার নেতা সৌমিত্র এবং স্থানীয় নেতৃত্ব গাড়িতে ছিলেন। গাড়ির সামনে বাইক নিয়ে হাজির ছিলেন গেরুয়া সমর্থকরা। কিন্তু জোড়াপুকুর ধেকে আধ মাইল এগোতে না এগোতেই, জিটি রোডে ওঠার আগে একটি পেট্রল পাম্পের কাছে তাঁদের পথ আটকায় পুলিশ। জানিয়ে দেওয়া হয়, বাইক নিয়ে এগনো যাবে না। তার জেরে পদযাত্রার সিদ্ধান্ত নেন এলাকায় বিজেপি-র সাংগঠনিক সভাপতি শ্যামল বসু।

উল্টো দিক থেকে তৃণমূল সমর্থকরা এসে বিজেপির মিছিল ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে বলে অভিযোগ। বিজেপি-র স্লোগানের পাল্টা স্লোগান দিতে শুরু করে তারা। কালো পতাকা দেখানো হয় সৌমিত্রকে। তা নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা চরমে ওঠে। পরিস্থিতি সামাল দিতে রাস্তায় ব্যারিকেড বসিয়ে তৃণমূল সমর্থকদের আটকায় পুলিশ। অন্য রাস্তা দিয়ে মিছিল বার করে দেওয়া হয়। কিন্তু তাতেও আঁচ কমেনি একটুও। জোড়াপুকুর থেকে মিছিল বেরিয়ে যাওয়ার পর গোবর-জল দিয়ে রাস্তা ধুয়ে খই ছড়ান তৃণমূলের লোকজন।

Advertisement

সৌমিত্রর পাশাপাশি সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি-তে যোগ দেওয়া প্রবীর ঘোষালকেও কালো পতাকা দেখানো হয়। কালি মাখিয়ে দেওয়া হয় বিভিন্ন জায়গায় বিজেপি নেতাদের পোস্টারে। সৌমিত্রর সঙ্গে তাঁর স্ত্রী সুজাতার সম্পর্কের টানাপড়েন নিয়ে ব্যাঙ্গাত্মক পোস্টার টোখে পড়ে নানা জায়গায়। তবে তৃণমূলের কেউ এর সঙ্গে যুক্ত নয় বলে দাবি করেছেন জেলা তৃণমূল সভাপতি দিলীপ যাদব। তিনি বলেন, ‘‘পুরনো মাঝারি এবং নতুনদের মধ্যে প্রতিযোগিতা চলছে বিজেপি-তে। তাই নিজেরাই দলের নেতাদের মুখে কালি লেপে দিচ্ছেন। ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কটাক্ষ করছেন। খারাপ কাজ করতে, খারাপ কথা বলতে ভালবাসে বিজেপি। চালিয়ে যাক ওরা। মানুষ খারাপ আচরণ পছন্দ করে না। তাই ওদের কেউ গ্রহণ করবেন না। সাধারণ মানুষ রুষ্ট হোন, এমন কাজ তৃণমূল করে না।’’

তবে এর পিছনে তৃণমূলের লোকজনের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন শ্যামল। তিনি বলেন, ‘‘এমনিতেই হাতে কালি, মুখে কালি নিয়ে ঘুরছে। কালো ছাড়া আর কী দেখবে? তাই কালো পতাকা দেখাচ্ছে। পোস্টারে কালি লেপছে।’’ সৌমিত্রকে ব্যঙ্গ করা নিয়ে প্রশ্ন করলে বলেন, ‘‘যত ইচ্ছে ব্যঙ্গ করুক। ’২১-এর ভোটে মানুষ জবাব দেবেন। গো হারা হারবে তৃণমূল।’’



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement