Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৬ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

Fair: করোনা আবহেও বজায় রইল রীতি, বাঁকুড়ায় নদীর তীরে মুড়ির মেলায় মাতলেন অনেকে

স্থানীয়দের দাবি, কেঞ্জাকুড়া গ্রামের এই মুড়ির মেলার বয়স প্রায় দু'শো বছর। প্রতি বছর এই মেলায় জড়ো হন বহু মানুষ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
বাঁকুড়া ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ২০:৩৭
Save
Something isn't right! Please refresh.
দ্বারকেশ্বর নদের তীরে মুড়ির মেলা।

দ্বারকেশ্বর নদের তীরে মুড়ির মেলা।
নিজস্ব চিত্র

Popup Close

করোনা আবহেই পালিত হল বাঁকুড়ার কেঞ্জাকুড়ার মুড়ির মেলা। মঙ্গলবার কয়েক হাজার মানুষ দ্বারকেশ্বর নদের তীরে বসে মুড়ি খেলেন নানা পদ সহযোগে।
স্থানীয়দের দাবি, কেঞ্জাকুড়া গ্রামের এই মুড়ির মেলার বয়স প্রায় দু'শো বছর। কেঞ্জাকুড়া গ্রাম লাগোয়া দ্বারকেশ্বর নদের তীরেই রয়েছে সঞ্জীবনী মাতার মন্দির। সেই মন্দিরে অতীত কাল থেকেই মকর সংক্রান্তির সময় সংকীর্তন অনুষ্ঠিত হয়। তা চলে মাঘ মাসের চার তারিখ পর্যন্ত। অতীতে দূরদূরান্ত গ্রামের মানুষ এই সংকীর্তন শুনতে মন্দিরে আসতেন। সঙ্গে গামছায় বেঁধে আনতেন মুড়ি। রাতভর সংকীর্তন শুনে পর দিন সকালে বাড়ি ফেরার পথে সেই মুড়ি নদের জলে ভিজিয়ে খেয়ে নিতেন। ধীরে ধীরে সেটাই মেলার চেহারা নিয়েছে।

বর্তমানে শুধু কেঞ্জাকুড়া গ্রামের মানুষই নয় দূরদূরান্ত অনেকেই থেকে শুধুমাত্র দ্বারকেশ্বরের তীরে বসে মুড়ি খাওয়ার লোভে ছুটে আসেন। সঙ্গে আনেন চপ, শিঙাড়া, বেগুনি, জিলিপি-সহ নানা খাবার। মঙ্গলবারও দেখা গেল সেই ছবি। কেঞ্জাকুড়ার বাসিন্দা সমাপ্তি কর্মকার বলেন, ‘‘এই দিনটার জন্য আমরা সারা বছর অপেক্ষা করে থাকি। এই দিন মুড়ি খাওয়ার পাশাপাশি পরিবারের সকলে মিলে আড্ডা হয়। আমাদের আত্মীয়স্বজনরাও আসেন এই সময়।’’

Advertisement


Something isn't right! Please refresh.

Advertisement