Advertisement
০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩
Sehgal Hossain

দাড়ি কেন বেড়েছে? প্রশ্ন বিচারকের, খুব ঠান্ডা বলে কাটিনি, তিহাড় জেল থেকে বললেন সহগল

গরু পাচারকাণ্ডে সিবিআইয়ের মামলায় শুক্রবার ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে আসানসোলের সিবিআই আদালতে সহগলকে হাজির করানো হয়। বিচারক জানান, পরবর্তী শুনানি ২২ ডিসেম্বর।

শুনানি চলাকালীন সহগলের কাছে তিহাড় জেলের কথা জানতে চাইলেন বিচারক।

শুনানি চলাকালীন সহগলের কাছে তিহাড় জেলের কথা জানতে চাইলেন বিচারক। গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

নিজস্ব সংবাদদাতা
আসানসোল শেষ আপডেট: ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ১২:৫৩
Share: Save:

গরু পাচারকাণ্ডে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)-এর হাতে গ্রেফতার হয়ে বর্তমানে দিল্লির তিহাড় জেলে বন্দি রয়েছেন অনুব্রত মণ্ডলের এক সময়ের দেহরক্ষী সহগল হোসেন। শুক্রবার সেখান থেকেই ভিডিয়ো কনফারেন্সের মাধ্যমে সিবিআইয়ের মামলায় আসানসোলের সিবিআই আদালতে তাঁকে হাজির করানো হয়। শুনানি চলাকালীন সরাসরি সহগলের সঙ্গে কথা বললেন বিচারক রাজেশ চক্রবর্তী। কিছু প্রশ্ন করেন অনুব্রতের প্রাক্তন ‘ছায়াসঙ্গী’কে। জানতে চান জেলের বর্তমান পরিস্থিতি। সেই সঙ্গে বিচারক সহগলকে জানান, তাঁর আইনজীবী কোনও জামিনের আবেদন করেননি। রইল বিচারকের সঙ্গে সহগলের সেই কথোপকথন—

Advertisement

বিচারক: দাড়ি কেন বেড়েছে?

সহগল হোসেন: খুব ঠান্ডা সাহেব। তাই কাটানো হয়নি।

বিচারক: ঠান্ডা কেমন? কম্বল দেওয়া হয় তো?

Advertisement

সহগল: ভীষণ ঠান্ডা। কম্বল দেওয়া হয় সাহেব।

বিচারক: কেউ তোমার জামিনের আবেদন করেননি। পরবর্তী শুনানি ২২ ডিসেম্বর।

সহগল: ঠিক আছে সাহেব।

গরু পাচার মামলায় গত ৯ জুন সহগলকে তলব করে টানা জিজ্ঞাসাবাদের পর গ্রেফতার করেছিল ইডি। এর পর সহগলকে দিল্লি নিয়ে যাওয়া হয়। দিল্লির আদালত অনুব্রতের দেহরক্ষীকে বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। তার পর থেকে তিহাড় জেলেই বন্দি সহগল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.