Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২০ মে ২০২২ ই-পেপার

URL Copied
Something isn't right! Please refresh.

মোদীর সভাস্থল, দায়িত্ব রাজ্যকেই  

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নিরাপত্তা নিয়ে রাজ্য পুলিশকে সতর্ক করল এসপিজি। নির্বাচনী প্রচারে বেশ কয়েক দফায় রাজ্যে আসতে পারেন মোদী।

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১০ মার্চ ২০১৯ ০৪:০৫
Save
Something isn't right! Please refresh.
Popup Close

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নিরাপত্তা নিয়ে রাজ্য পুলিশকে সতর্ক করল এসপিজি। নির্বাচনী প্রচারে বেশ কয়েক দফায় রাজ্যে আসতে পারেন মোদী। এর আগে মেদিনীপুর, ঠাকুরনগর এবং ময়নাগুড়ির সভার আয়োজন নিয়ে রাজ্য পুলিশের তরফে ‘অসহযোগিতা’ ছিল বলে মনে করছে এসপিজি। সেই কারণে গত বুধবার এসপিজি বা স্পেশাল প্রোটেকশন গ্রুপের কর্তারা রাজ্য পুলিশের এসপি থেকে ডিজি পর্যন্ত অফিসারদের সঙ্গে ভিডিয়ো কনফারেন্সে মোদীর নিরাপত্তা নিয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন। বৈঠকে ভিআইপি নিরাপত্তা সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সর্বোচ্চ কর্তাও হাজির ছিলেন।

বৈঠকে রাজ্যের পুলিশ কর্তারা প্রধানমন্ত্রীর সভার আয়োজকদের ত্রুটির কথা জানালে এসপিজি কর্তারা জানিয়ে দেন, প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থলের পরিকাঠামো জেলাশাসককেই তৈরি করে দিতে হবে। প্রয়োজনে জেলা প্রশাসন আয়োজকদের কাছ থেকে টাকা চেয়ে নিতে পারবে। কিন্তু আয়োজকরা পারছেন না বলে চোখ বুজে থাকা চলবে না।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের বিচারে, মোদীর পরেই সবচেয়ে বেশি হামলার আশঙ্কা রয়েছে যোগী আদিত্যনাথ, অমিত শাহ, রাজনাথ সিংহ, ফারুক আবদুল্লা এবং ওমর আবদুল্লার উপর।

Advertisement

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপরেও মাওবাদীরা ‘ক্ষুব্ধ’ বলে কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা সে দিন জানিয়েছেন। ফলে নির্বাচনী প্রচারে পুলিশ যাতে এঁদের নিরাপত্তা নিয়েও সতর্ক থাকে, তার পরামর্শ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কর্তারা।

আরও পড়ুন: হস্তক্ষেপ কংগ্রেস সভাপতির, রাজ্যে রফাসূত্র ২৫-১৭

এসপিজি ও গোয়েন্দা কর্তারা জানান, পুলওয়ামা় এবং বালাকোটের পরে মোদীর উপর হামলার আশঙ্কা অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে জেএমবি, এবিটি’র মতো বাংলাদেশি জঙ্গি সংগঠনগুলির সক্রিয়তাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। এক কর্তা জানান, মোদীর পটনার সভায় হামলা হয়েছিল। হামলাকারীরা এসেছিল রাঁচী থেকে। তার আগে তারা বারাণসী ও কানপুরে প্রধানমন্ত্রীর সভাস্থল ঘুরে দেখেছিল। ফলে পশ্চিমবঙ্গে হামলা চালানোর জন্য এ রাজ্যেই জঙ্গি গতিবিধি থাকতে হবে, তার কোনও মানে নেই। বৈঠকে উপস্থিত এক কর্তার বক্তব্য, ‘‘শুধু পরিচিত জঙ্গিগোষ্ঠী নয়, ‘লোন উলফ’ হামলাকারীদের নিয়েই চিন্তা বেশি।’’

এই মুহূর্তে দেশে এসপিজি নিরাপত্তা পান নরেন্দ্র মোদী, সনিয়া গাঁধী, রাহুল গাঁধী, প্রিয়ঙ্কা গাঁধী এবং মনমোহন সিংহ। ফলে এঁরা যেখানেই যাবেন, বাড়তি সজাগ থাকার নির্দেশ রয়েছে। তবে মোদীর সভামঞ্চ থেকে ব্যারিকেড তৈরি, সবই এখন থেকে জেলাশাসকদের দায়িত্ব।



Something isn't right! Please refresh.

আরও পড়ুন

Advertisement