×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

পুলিশের ঘরেই ঢুকল চোর, আলমারি ভেঙে লক্ষাধিক টাকার চুরি বহরমপুরে

নিজস্ব সংবাদদাতা
বহরমপুর ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৩:২০
আলমারি ভেঙে লক্ষাধিক টাকার গয়না ও নগদ চুরি গিয়েছে বলে অভিযোগ পুলিশকর্মীর পরিবারের।

আলমারি ভেঙে লক্ষাধিক টাকার গয়না ও নগদ চুরি গিয়েছে বলে অভিযোগ পুলিশকর্মীর পরিবারের।
—নিজস্ব চিত্র।

খোদ পুলিশের ঘরেই চোরের হানা! পরিবারের সদস্যদের অনুপস্থিতিতে এক পুলিশকর্মীর বাড়িতে ঢুকে আলমারি ভেঙে চুরি হল মুর্শিদাবাবাদ জেলার বহরমপুরে। অভিযোগ, লক্ষাধিক টাকার গয়না ও নগদ নিয়ে চম্পট দিয়েছে চোরেরা। এই ঘটনায় কোনও পরিচিত জড়িত বলে দাবি করেছে ওই পুলিশকর্মীর পরিবার। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, মঙ্গলবার রাতে বহরমপুর থানা এলাকার মোল্লাগেরে ওই চুরি হয়েছে। বাড়ির মালিক চিন্ময় মজুমদার সে সময় বাড়িতে ছিলেন না। মঙ্গলবার বহরমপুরে এসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার কাজে নিযুক্ত ছিলেন নওদা থানার অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব-ইনস্পেক্টর চিন্ময়।

পরিবারের আত্মীয়েরা জানিয়েছেন, মঙ্গলবার রাতে ওই বাড়ি ফাঁকাই ছিল। চিন্ময় বহরমপুরে ডিউটিতে থাকায় বাড়িতে ছিলেন না। তাঁর মা একা থাকতে পারবেন না বলে রাতে মেয়ের বাড়িতে ছিলেন। দুপুরে ফিরে এসে তিনি দেখেন, আলমারি ভাঙা। বাড়ির জিনিসপত্র সব ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে রয়েছে। বাড়ির আলমারির তালা ভেঙে লক্ষাধিক টাকার সোনার গয়না ও নগদ অর্থ চুরি গিয়েছে বলে অভিযোগ পরিবারের।

Advertisement

চিন্ময়বাবুর বোন রূপালি স্যান্যাল বলেন, ‘‘বৌদি ডিসেম্বর থেকে এক জায়গায় গিয়েছেন। মা সুগারের রোগী। দাদার ডিউটি থাকায় বাড়িতে একাই থাকতে হত। রাতের বেলা বাড়িতে একা থাকতে পারবেন না বলে মা আমার বাড়িতে ছিলেন। দুপুরে বাড়ি ফিরে দেখেন, আলমারি ভেঙে সব চুরি হয়ে গিয়েছে।’’

চিন্ময়বাবুর আর এক বোন মিতালি মজুমদার বলেন, ‘‘বাড়ির আলমারির চাবি বৌদি কোথায় রাখেন, তা আমরাই জানি না। অথচ চোরেরা কী ভাবে তা খুঁজে পেল, ভেবে অবাক লাগছে।’’ এই ঘটনার পিছনে কোনও পরিচিতের হাত রয়েছে বলে পরিবারের লোকজনের সন্দেহ। রূপালির দাবি, ‘‘চেনাজানার মধ্যেই কেউ এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত।’’

Advertisement