দেউলিয়া আইনে জেট এয়ারওয়েজের সম্পদ বিক্রির  জন্য দরপত্র চাইলেন সংস্থাটির ঋণদাতা নিযুক্ত রেজ়লিউশন প্রফেশনাল আশিস ছাছারিয়া। এই সংক্রান্ত বিজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, ৩ অগস্টের মধ্যে প্রাথমিক আগ্রহপত্র জমা দিতে হবে। এপ্রিলে পরিষেবা বন্ধ হয়ে যাওয়া বিমান সংস্থাটির সম্পদের মধ্যে রয়েছে ১৪টি বিমান (১০টি বোয়িং), জেট প্রিভিলেজের ৪৯% অংশীদারি এবং কিছু বাড়ি। ২৩ জুলাই দেউলিয়া আইনে জেট পুনর্গঠনের অগ্রগতি এবং ছাছারিয়ার তৈরি করা রিপোর্ট খতিয়ে দেখতে শুনানি হবে। 

বিজ্ঞাপনে জানানো হয়েছে, এক বার আগ্রহপত্র জমা পড়লে ৬ তারিখ সম্ভাব্য বাছাই করা আবেদনকারীদের নাম জানানো হবে। কোনও আপত্তি থাকলে তা জানাতে হবে ১১ অগস্টের মধ্যে। প্রথম ধাপের পরে ১৪ অগস্ট বাছাই হওয়া সংস্থাগুলির চূড়ান্ত ঘোষণা করা হবে। সে ক্ষেত্রে সংস্থাগুলির থেকে কত টাকা আসছে তার ভিত্তিতে ৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে জেট পুনরুজ্জীবন পরিকল্পনা জমা এবং ওই মাসেরই ২০ তারিখ জাতীয় কোম্পানি আইন ট্রাইবুনালে ছাছারিয়ার তৈরি চূড়ান্ত পরিকল্পনা দাখিল হতে পারে। 

উল্লেখ্য, শুক্রবারই জেট এয়ারওয়েজে অন্তর্বর্তী তহবিল জোগাতে সায় দিয়েছে ঋণদাতাদের কমিটি। এই অর্থ ব্যবহার করা হবে দেউলিয়া আইনের আওতায় সংস্থাটির খেলাপি ঋণের সমস্যা মেটানোর প্রক্রিয়ায়। এ দিকে, বিমান সংস্থাটির থেকে বকেয়া আদায়ে এখনও পর্যন্ত ১৬,৬৪৩টি দাবি জমা পড়েছে বলে জানিয়েছেন ছাছারিয়া। যার মোট অঙ্ক ২৪,৮৮৭ কোটি টাকা। এর মধ্যে রয়েছে ঋণদাতা ব্যাঙ্ক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, লিজদাতা, কর্মীদের দাবি করা অর্থ। কিছু ক্ষেত্রে দাবি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। তবে জেট এয়ারের সেল্‌স এজেন্ট এবং প্রতিষ্ঠাতা নরেশ গয়ালের অন্য এক সংস্থার ২২৯ কোটি টাকার দাবি খারিজ করেছেন রেজ়লিউশন প্রফেশনাল।