আগামী শুক্রবার থেকে তিন দিন বিজন সেতু বন্ধ রাখার জন্য কলকাতা পুলিশকে প্রস্তাব দিল কেএমডিএ।

সংস্থা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য ২২ নভেম্বর রাত থেকে সোমবার ২৫ নভেম্বর ভোর পর্যন্ত ওই সেতু বন্ধ রাখার জন্য কলকাতা পুলিশের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। যদিও কলকাতা ট্র্যাফিক পুলিশ থেকে শুক্রবার রাত পর্যন্ত এ ব্যাপারে সবুজ সঙ্কেত আসেনি।

কেএমডিএ-র এক আধিকারিক জানিয়েছেন, পুজোর আগেই শহরের সব ক’টি সেতু এবং উড়ালপুলের স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে তার রিপোর্ট জমা পড়ার কথা ছিল। কিন্তু পুজো এসে যাওয়ায় যানজটের আশঙ্কা করে বিজন সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা বন্ধ রাখা হয়। ঠিক হয়, উৎসবের মরসুম মিটে গেলে ওই কাজ হবে। সেই মতো সেতুটির স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পুলিশের কাছে আবেদন জানানো হয়েছে। আগামী ৩০ নভেম্বর সব উড়ালপুল এবং সেতুর মেরামতি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হওয়ার কথা।

কেএমডিএ সূত্রের খবর, মাঝেরহাট সেতু বিপর্যয়ের পরে শহর এবং শহরতলির সব ক’টি উড়ালপুল ও সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ঠিক হয়, প্রথম পর্যায়ে আটটি সেতু পরীক্ষা হবে। তার মধ্যে ইতিমধ্যেই সাতটি উড়ালপুল পরীক্ষার কাজ শেষ হয়েছে। দ্বিতীয় দফায় আরও সাতটি উড়ালপুলের পরীক্ষা হবে বলে খবর।

পুলিশ জানিয়েছে, বিজন সেতু বন্ধ রাখার ব্যাপারে এখনও চূড়ান্ত দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। আগে যখন ওই সেতু বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছিল, তখন বিকল্প রুট হিসেবে ইএম বাইপাস থেকে গড়িয়াহাটমুখী গাড়িকে সাঁপুইপাড়া দিয়ে ঘোরানো হবে বলে ঠিক হয়েছিল। অন্য দিকে বাইপাসগামী সব গাড়ি পাটুলি কানেক্টর বা প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোড কানেক্টর দিয়ে যাবে বলে ঠিক হয়।