বিধ্বংসী আগুনে পুড়ে গেল বাঁশ এবং প্লাইউডের প্রায় ডজনখানেক দোকান এবং গুদাম। পার্ক সার্কাসে রেললাইনের ধারে রাইফেল রেঞ্জ রোড লাগোয়া দোকানগুলিতে বুধবার দুপুরে দেড়টা নাগাদ হঠাৎ আগুন লাগে।

পর পর শুকনো বাঁশের গুদাম এবং সঙ্গে প্লাইউডের দোকান, ফলে মুহুর্তের মধ্যে আগুনের লেলিহান শিখা ছড়িয়ে পড়ে একের পর এক দোকানে। স্থানীয় বাসিন্দারা বলেন, একদিকে দাহ্য পদার্থ অন্যদিকে হাওয়ার গতি— দ্রুত আগুন ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। আগুন দ্রুত রেললাইনের পাশ বরাবর প্রায় পঞ্চাশ মিটার জায়গা জুড়ে ছড়িয়ে পড়ায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে।

দমকলের ছ’টি ইঞ্জিন এবং একটি ছোট ওয়াটার জেট ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, দমকল অনেক দেরি করে পৌঁছেছে। ফলে তাঁরা পৌঁছনোর আগেই আগুন অনেকটা ছড়িয়ে পড়ে। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে রীতিমত বেগ পায় দমকল কর্মীরা।

দমকল প্রাথমিকভাবে আগুন যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেই চেষ্টা করেন। কারণ যেখানে আগুন লেগেছে সেটা ঘনবসতিপূর্ণ এলাকা। বেশ কয়েকটি বহুতলও রয়েছে। দমকলের দাবি, অপরিসর ঘিঞ্জি এলাকা হওয়ায় কাজ করতে গিয়ে তাঁরা সমস্যার মুখোমুখি হন। তবে দমকলকর্মীদের দাবি, আগুন ছড়িয়ে পড়া আটকানো সম্ভব হয়েছে। তবে প্লাইউড, বাঁশ ফাইবারে ঠাসা যে দোকানগুলিতে আগুন লেগেছে সেই দোকানগুলির আগুন প্রায় দেড়ঘণ্টা পরও নিয়ন্ত্রণে আনতে ব্যর্থ হন দমকলকর্মীরা। দমকল কর্মীদের সঙ্গে আগুন নেভাতে নামেন স্থানীয় মানুষরা। তাঁদের অভিযোগ, দমকলের কাছে পর্যাপ্ত জল ছিল না। ফলে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা কঠি হয়ে দাঁড়ায়।

 

আরও পড়ুন: মমতার অস্বস্তি বাড়িয়ে মোদীর শপথে আমন্ত্রণ এ রাজ্যে খুন হওয়া ৫৪ বিজেপি কর্মীর পরিবারকে

আরও পড়ুন: তিন বার সমন এড়ানোর পর সিবিআই দফতরে জেরায় হাজির অর্ণব ঘোষ

অন্যদিকে আগুন কার্যত রেললাইনের উপর পর্যন্ত পৌঁছে যাওয়ায়, শিয়ালদহ দক্ষিণ শাখায় পার্কসার্কাস স্টেশনের পর থেকে ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখা হয়। বালিগঞ্জ স্টেশন পর্যন্ত ট্রেন চলাচল করে।