• নিজস্ব সংবাদদাতা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

আইএসআই চর! ফোর্ট উইলিয়ামের তথ্য ফাঁস! বেনামি চিঠিতে আতঙ্কে খিদিরপুরের নামী স্কুলের শিক্ষকরা

teachers
খিদিরপুর স্কুলের শিক্ষকরা। —নিজস্ব চিত্র।

খিদিরপুরের শতাব্দী প্রাচীন একটি স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা ‘জঙ্গি কার্যকলাপে যুক্ত’! কেউ ‘আইএসআইয়ের চর’। কেউ বা ‘ফোর্ট উইলিয়ামের তথ্য ফাঁস’ করছেন। কেউ আবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘খুনের ছক কষেছেন’!

এমনই সব অভিযোগে ভরা উড়ো চিঠি কখনও পৌঁছচ্ছে স্কুলের ঠিকানায়, কখনও আবার পৌঁছে যাচ্ছে পুলিশ-প্রশাসনের কাছে। এমনকি মুখ্যমন্ত্রীর দফতর বা রাজভবনের ঠিকানাতেও চলে আসছে সেই সব চিঠি। এ সব চিঠি নিয়েই কার্যত বিড়ম্বনায় পড়েছেন ওই স্কুলের ১৩ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা। শুধু তাই নয়, ‘পত্র বোমার’ জেরে তাঁদের কখনও পুলিশের মুখোমুখি হতে হচ্ছে, কখনও বা কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থার।

কে বা কারা এই চিঠি পাঠাচ্ছে, তা অবশ্য জানা যায়নি। কিন্তু এই উড়ো চিঠির জন্যে তাঁদের সামাজিক পরিচিতি নষ্ট হচ্ছে বলে জানাচ্ছেন ওই স্কুলের ইংরাজি বিভাগের শিক্ষক ঋতুপর্ণ বসু। মঙ্গলবার তিনি বলেন, “স্কুল শিক্ষা দফতর থেকে শুরু করে ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি, সিআইডি, কলকাতা পুলিশ, এমনকি  রাজ্যপাল, মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও অভিযোগ করা হয়েছে। ফলে তদন্তকারী সংস্থাগুলি স্কুলে এসে জিজ্ঞাসাবদ করছেন। এই পরিস্থিতিতে আমরা আতঙ্কিত। কে বা কারা এই চিঠি দিচ্ছে, সে বিষয়ে আমাদের কিছু জানানো হচ্ছে না।”

আরও পড়ুন: বেহাল স্বাস্থ্য বাঘাযতীন উড়ালপুলের, ফাটল চিহ্নিত করলেন বিশেষজ্ঞরা, অনিশ্চিত হতে পারে যান চলাচল

ঋতুপর্ণবাবু জানান, ওই স্কুলের এক ইংরেজি শিক্ষকের বিরুদ্ধে বলা হয়েছে, তিনি নাকি পাকিস্তানি গুপ্তচর সংস্থা (আইএসআই)-র হয়ে কাজ করেন। আবার এক এনসিসি শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়েছে, তিনি ফোর্ট উলিয়ামের ভিতরের সব তথ্য প্রতিবেশী দেশে পাচার করছেন। এমনকি ওই স্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রীরূপগোপাল গোস্বামীর বিরুদ্ধেও জঙ্গি কার্যকলাপের অভিযোগ আনা হয়েছে। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষক বলেন, ‘‘এই ঘটনার পিছনে পরিচিত কারও হাত থাকতে পারে। এটা উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে করা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: রাতের কলকাতায় পুলিশের বাইক অভিযান ঘিরে তুলকালাম মল্লিকবাজার

স্কুল সূত্রে খবর, শুধু জঙ্গি কার্যকলাপেই নয়, কয়েক জন শিক্ষিকার বিরুদ্ধে মিড ডে মিলে দুর্নীতি এবং তোলাবাজিরও অভিযোগও উঠেছে। ইতিমধ্যেই এর প্রতিকার চেয়ে ওয়াটগঞ্জ থানায় গিয়েছেন ওই স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ। এ ব্যাপারে ডিসি বন্দর ওয়াকার রাজা বলেন, ‘‘এই ঘটনায় কে কার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে, স্কুল শিক্ষকদের বিরুদ্ধে কোনও ষড়যন্ত্র হচ্ছে কি না তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।’’

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন