×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৪ জুন ২০২১ ই-পেপার

‘ফ্লাইওভার’-এ অপহৃত বিদিশা, এগিয়ে এলেন কোয়েল মল্লিক

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৭ মার্চ ২০২১ ১১:৪৩
‘ফ্লাইওভার’-এ কোয়েল মল্লিক

‘ফ্লাইওভার’-এ কোয়েল মল্লিক

কোভিড। লকডাউন। ছেলে কবীরের জন্ম। গত বছর এমনই এক ওঠা নামার মধ্যে দিয়ে কোয়েলের জীবন কেটেছে। পুজোতে নতুন ছবি এসেছে ‘রক্ত রহস্য’। ২০২১-এ আসছে ‘ফ্লাইওভার’।

‘কোয়েল মল্লিক তারকা, অবশ্যই। কোয়েল মল্লিক খুব ভাল অভিনেত্রীও’, দাবি পরিচালক অভিমন্যু মুখোপাধ্যায়ের। পরিচালক-অভিনেত্রীর এই রসায়ন দেখা যাবে ২ এপ্রিল বড় পর্দায়। সব ঠিক থাকলে ওই দিন মুক্তি পেতে চলেছে সুরিন্দর ফিল্মসের আগামী ছবি ‘ফ্লাইওভার।’ সৌকর্য ঘোষালের ‘রক্ত রহস্য’-এ রেডিয়ো জকির পর এই ছবিতে কোয়েল সাংবাদিক। আনন্দবাজার ডিজিটালকে কোয়েল বললেন, ‘‘ফ্লাইওভার পুরোপুরি মানবিকতা আর বাস্তবের সমন্বয়ে বলা এক সাংবাদিকের গল্প। ফ্লাইওভার নিয়ে খবর করতে গিয়ে যে নানা জটিল পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়।’’

আবারও অন্য রকম ভূমিকায় কোয়েল। কেন? পরিচালক আনন্দবাজার ডিজিটালকে জানালেন, দীর্ঘ দিন ধরেই কোয়েলের সঙ্গে কাজ করার ভীষণ ইচ্ছে ছিল তাঁর। কিন্তু সুযোগ হয়ে উঠছিল না। অন্য একটি প্রোজেক্ট করতে করতেই ‘ফ্লাইওভার’-এর গল্প শোনান তিনি নিসপাল সিংহ রানেকে। ছবির মুখ্য চরিত্রে অভিনয়ের জন্য কোয়েলের নামও বলেন। রানে রাজি হতেই চিত্রনাট্য তৈরির কাজে হাত দেন পরিচালক।

Advertisement

ছবির মুখ্য চরিত্র বিদিশা পেশায় সাংবাদিক। অপরাধ দুনিয়ার উপরে আলোকপাত করতে তার গল্পের বিষয় হয়ে ওঠে ‘ট্র্যাফিকিং ভায়োলেশন’। আচমকা এক রাতে খুনের মিথ্যে অভিযোগে গ্রেফতার হয় সে। বিদিশা কী পারবে নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে? নাম ভূমিকায় কোয়েল ছাড়াও ছবিতে দেখা যাবে গৌরব চক্রবর্তী, রবি সাউ, শান্তিলাল মুখোপাধ্যায় এবং কৌশিক রায়কে।

এই ছবিতেই কোয়েল ছাড়া প্রত্যেক চরিত্রই গুরুত্বপূর্ণ। অভিমন্যুর হাত ধরেই ছোট পর্দার জনপ্রিয় মুখ রবি পা রাখতে চলেছেন বড় পর্দায়। পরিচালক জানালেন, ‘‘কৌশিকের সঙ্গে আমার বন্ধুত্ব দীর্ঘদিনের। আমার প্রথম ধারাবাহিকের সূত্রেই ও ছোট পর্দায় প্রথম পা রেখেছিল। পাশাপাশি, একাধিক ছবিতেও অভিনয় করেছে। ‘ফ্লাইওভার’-এ দর্শক এখানে ভিন্ন কৌশিককে খুঁজে পাবেন। ‘খড়কুটো’র ‘সৌজন্য’ চরিত্রের সঙ্গে যেখানে কোনও মিল নেই।’’

সাংবাদিক হয়ে উঠতে গিয়ে কী কী হোমওয়র্ক করলেন কোয়েল? পরিচালকের দাবি, ‘‘কোয়েল সব অভিনয়ের সময় চরিত্রের ভিতরে ঢুকে যান। এখানেই তাই-ই করেছেন। ক্যামেরা ফেস করার আগে সাংবাদিক বন্ধুদের খুঁটিয়ে দেখেছেন। প্রয়োজনে কথা বলে নিয়েছেন তাঁদের সঙ্গে।’’ ছবির ভবিষ্যত নিয়েও যথেষ্ট আশাবাদী অভিমন্যু। যুক্তি, আনলকের প্রথম ফেসে যদি দর্শক হলে গিয়ে ‘চিনি’ দেখতে পারেন, যদি ‘ম্যাজিক’ হিট হতে পারে তা হলে ‘ফ্লাইওভার’ও হতাশ করবে না। কোয়েল বললেন, ‘‘সিনেমা হলে গিয়ে ছবি দেখার অভ্যেসটা এখন বাড়বে। তাই ‘ফ্লাইওভার’-কে আমরা হলে নিয়ে আসছি। আর এই ছবির আবেগ সকল মানুষকে ছুঁয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।’’

Advertisement