×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

২৩ এপ্রিল ২০২১ ই-পেপার

নুসরত জাহানের স্বামী নিখিলের ব্যবসায়িক অ্যাকাউন্ট হ্যাক হল, অভিযোগ দায়ের পুলিশে

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ০৫ মার্চ ২০২১ ১৩:৩৪
নিখিল জৈন ও নুসরত জাহান।

নিখিল জৈন ও নুসরত জাহান।

তৃণমূলের অভিনেত্রী-সাসংদ নুসরতের স্বামী নিখিল জৈনের দু’টি ব্যবসায়িক ব্র্যান্ডের ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট ‘হ্যাক’ করা হয়েছে। ওই দু’টি অ্যাকাউন্ট সম্পূর্ণ ব্যবসায়িক উদ্দেশে শাড়ি এবং পোশাক বিক্রির জন্য ব্যবহার করা হত। শুক্রবার আনন্দবাজার ডিজিটালকে নিজেই ওই খবর জানিয়ে নিখিল বলেছেন, ‘‘এটা খুবইই মর্মান্তিক ঘটনা। আমার ব্যবসায়িক দু’টো ব্রান্ডেরই অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে সমস্ত পোস্টার এবং ফটোশ্যুটের সমস্ত ছবি মুছে দেওয়া হয়েছে। আমি কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগের কাছে অভিযোগ জানিয়েছি। ওঁরা জানিয়েছেন, টাকার বিনিময়ে কলকাতা থেকেই কেউ এই কাজ করেছে। খুব দ্রুতই তার নাম সামনে আসবে। পুলিশ আমাকে তেমনই বলেছে।’’

ঘটনাচক্রে, নিখিলের ওই দু’টি বাণিজ্যিক ব্র্যান্ডের প্রধান মুখ ছিলেন অভিনেত্রী-সাংসদ নুসরত। যদিও নিখিল জানান, এ বার নতুন নকশা নিয়ে নতুন মুখকে আনা হচ্ছে তাঁর শাড়ির ব্র্যান্ডটিতে। সেই কারণেই তিনি দিল্লিতে ব্যস্ত ছিলেন। পুলিশের ডাক পেয়ে অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড বদল এবং সেই সংক্রান্ত সইসাবুদের জন্য তিনি কলকাতা ফিরেছেন। শনিবার আবার ব্যবসার কারণেই দিল্লি চলে যাবেন। তবে নিখিলের বক্তব্য একটি ‘গুরুত্বপূর্ণ’ বিষয় রয়েছে। তা হল, অর্থের বিনিময়ে কাউকে ওই কাজ করতে নিযুক্ত করা হয়েছিল। পুলিশি পরিভাষায় য়াকে বলে ‘পেইড অ্যাসাইনমেন্ট’।

Advertisement

আনন্দবাজার ডিজিটালকে নিখিল জানান, এটি সাময়িক সমস্যা। তাঁর কথায়, ‘‘এ ভাবে আমার বাণিজ্যিক কোনও ক্ষতি করা যাবে না। আমার ব্যবসা আরও এগোবে।’’ নিখিল জানাচ্ছেন, খুব দ্রুত তিনি নতুন একটি ব্র্যান্ড আনছেন। যেখানে অপেক্ষাকৃত কম দামে ‘ডিজাইনার শাড়ি’ পাওয়া যাবে। নিখিলের বক্তব্য, ‘‘আমি দিল্লি থেকে কলকাতায় এসেছি একদিনের জন্য। আমার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ডও বদলেছি। আমার অ্যাকাউন্ট প্রাইভেট করেছি। এখন বুঝতে পারছি, আমার চারদিকে শত্রু ঘুরছে। পয়সার বিনিময়ে আমার ব্যবসার ক্ষতি করার জন্য কাউকে নিয়োগ করা হয়েছে। তবে এই ভাবে অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে কেউ আমার ব্যবসার ক্ষতি করতে পারবে না। আমাদের টিমের কাছে সব শ্যুটের ছবি রাখা আছে।’’

নিখিল নিশ্চিত, যে বা যারা টাকা দিয়ে এই কাজ করিয়েছে, তার বা তাদের নাম প্রকাশ্যএ আনবে পুলিশ। কে এই কাজ করাচ্ছে, সেটা তাঁকে জানতেই হবে! নিখিল নিজে অবশ্য কারও নাম বলতে চাননি। বরং খানিক হতাশ গলায় বলেছেন, ‘‘শুধু শুধু হেনস্থা করার চেষ্টা করা হচ্ছে আমায়। এ সব করে কি কারও ক্ষতি করা যায়? প্রসঙ্গত, কিছুদিন আগে নিখিল আনন্দবাজার ডিজিটালকে নিখিল জানিয়েছিলেন, তাঁর আর নুসরতের বিবাহবিচ্ছেদ নিয়ে তিনি মুখ খুলবেন না। শুক্রবারও সেই প্রসঙ্গ ওঠায় তিনি বলেছেন, ‘‘যে দিন বিবাহবিচ্ছেদ হবে, সেদিন আমি ঠিক জানিয়ে দেব। এখনও সেই সময় আসেনি।’’

Advertisement