Follow us on

Download the latest Anandabazar app

© 2021 ABP Pvt. Ltd.

Advertisement

২৩ অক্টোবর ২০২১ ই-পেপার

Srijit: তোমার ভালবাসায় কী থেকে কী হয়ে গেলাম...! জন্মদিনে রহস্য-ফাঁস সৃজিতের

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২২:১১
সৃজিত মুখোপাধ্যায়

সৃজিত মুখোপাধ্যায়

১৯৬৫ সালের ছবি ‘গাইড’-এর একুশের সংস্করণ দেখতে চান? সৃজিত মুখোপাধ্যায় এবং অনির্বাণ ভট্টাচার্যের বৃহস্পতিবারের টুইট বার্তা তা হলে অবশ্যই পড়তে হবে। ২৩ সেপ্টেম্বর জাতীয় পুরস্কারজয়ী পরিচালকের জন্মদিন। সকাল থেকে টলিউড ইন্ডাস্ট্রি এবং অনুরাগীদের শুভেচ্ছায় ভেসেছেন তিনি। তবে দিনের সেরা ছিল অনির্বাণের টুইট। ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি’ ওয়েব সিরিজের দু’টি দৃশ্যের ছবি ভাগ করে নিয়ে অভিনেতা লিখেছেন, ‘ক্যয়া ক্যয়া করনা পড়তা হ্যায় মুখার্জিবাবু!’ তার পরেই তিনি প্রিয় পরিচালককে জন্মদিনের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। মুখুজ্জে মশাইয়ের জবাবে ষাটের দশকের সেই কালজয়ী ছবির একটি জনপ্রিয় গানের অনুরণন শোনা গিয়েছে। ‘ক্যয়া সে ক্যয়া হো গ্যয়া’-র ভঙ্গিতেই যেন পাল্টা বলেছেন সৃজিত, ‘তোমার ভালবাসায় আমি কী থেকে কী হয়ে গেলাম...’ (হামকো তুমহারে ইশক নে ক্যয়া ক্যয়া বনা দিয়া)!

টলিউড জানে, সৃজিতের সিনে দুনিয়ার অঘোষিত ‘রাহুল দ্রাবিড়’ অনির্বাণ ভট্টাচার্য। হইচই ওয়েব প্ল্যাটফর্মের জন্য বানানো ‘রেক্কা’ (রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি)-র সাংবাদিক বৈঠকে কথায় কথায় সেই রকমই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন পরিচালক। বাংলাদেশী লেখক মহম্মদ নাজিমউদ্দিনের লেখা রহস্য উপন্যাস ‘রবীন্দ্রনাথ এখানে কখনও খেতে আসেননি’-র অন্যতম চরিত্র ‘আতর আলি’র ভূমিকায় অভিনয় করেছেন অনির্বাণ। সেই সূত্রেই সৃজিত ফাঁস করেছিলেন, বাংলাদেশের জনপ্রিয় অভিনেতা চঞ্চল চৌধুরীকে এই চরিত্রের জন্য তিনি প্রথমে বেছেছিলেন। পরে তাঁর জায়গায় আসেন অনির্বাণ। সেই ছবিই ভাগ করেছেন অভিনেতা। চিত্রনাট্য অনুযায়ী, মৃত্যুর দৃশ্য বাস্তবসম্মত করতে তাঁকে কবরে শুতে হয়েছিল। টুইটে দেওয়া একটি ছবিতে দেখা গিয়েছে, তাঁকে ধরে কবরে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। অন্যটিতে, গর্ত থেকে উঠে এসে মাটি-কাদা মাখা অবস্থাতেই ছবি তুলেছেন অভিনেতা। সাংবাদিক বৈঠকে পরিচালক জানিয়েছিলেন, অভিনেতা প্রমাণ করে দিয়েছেন তাঁকে বেছে তিনি কোনও ভুল করেননি।

Advertisement

সৃজিতের সঙ্গে বড় পর্দায় অনির্বাণের আপাতত শেষ কাজ ‘দুই পুরুষ’। ‘বাইশে শ্রাবণ’ ছবির সিক্যুয়েলে সৃজিতের তুরুপের তাস ছিলেন অনির্বাণ। ছবির ‘খোকা’ চরিত্রকে জীবন্ত করতে গিয়ে ভ্রু-এর গঠন বদলানোর পাশাপাশি তিনি বহু বাহ্যিক পরিবর্তন ঘটিয়েছিলেন। চরিত্রের বলা সংলাপ আজও এই প্রজন্মের মুখে মুখে ফেরে। অনির্বাণকে ফের দেখা যাবে সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের আগামী পিরিয়ড ড্রামা ‘লহ গৌরাঙ্গের নাম’ ছবিতে।

আরও পড়ুন

Advertisement