×

আনন্দবাজার পত্রিকা

Advertisement

১১ মে ২০২১ ই-পেপার

১৮৭৯-এর কলকাতা ১৪২৮-এ, পয়লা বৈশাখে ‘গোলন্দাজ’-এর উপহার ফুটবলের জনক

নিজস্ব সংবাদদাতা
কলকাতা ১৫ এপ্রিল ২০২১ ২১:৩৯
‘গোলন্দাজ’-এ দেব

‘গোলন্দাজ’-এ দেব

পয়লা বৈশাখ আপামর বাঙালির। একই ভাবে বাঙালির ভীষণ আপন ফুটবল। বিদেশি এই খেলাকে স্বদেশি বানিয়েছিলেন কে? তিনিও এক বাঙালি, নগেন্দ্রপ্রসাদ সর্বাধিকারী। কিন্তু তাঁর খবর কে জানত? তাঁকে সামনে আনার দায়িত্ব তুলে নিয়েছেন ধ্রুব বন্দ্যোপাধ্যায়। বিস্মৃতপ্রায় মানুষটিকে সযত্নে ক্যামেরার বন্দি করেছেন। অবশেষে ১৮৭৯-এর কলকাতা ধরা দিল ১৪২৮ সনে। এসভিএফের আগামী ছবি ‘গোলন্দাজ’কে কেন্দ্র করে। শুভ দিনে প্রকাশ্যে এল ছবির টিজার। সাংসদ-তারকা দেব, অনির্বাণ ভট্টাচার্য, ঈশা সাহা-সহ টিম ‘গোলন্দাজ’-এর উপস্থিতিতে।

বিকেল সাড়ে ৫টায় প্রেক্ষাগৃহ। ক্যামেরা তাক করে অপেক্ষায় আলোকচিত্রীরা। নগেন্দ্রপ্রসাদ স্বয়ং আসছেন সেখানে! নির্দিষ্ট সময়ে দেখা মিলল ফুটবলের জনকের। গাঢ় লাল পাঞ্জাবি, ধাক্কা পাড়া ধুতিতে আদ্যোপান্ত বাঙালি সাজে উপস্থিত দেব ওরফে ‘নগেন্দ্রপ্রসাদ’। করোনা বিধি মেনে হলের ভিতরে একটি আসন ছেড়ে বসলেন সবার সঙ্গে। হল অন্ধকার হতেই জীবন্ত নগেন্দ্রপ্রসাদের জীবনের কিছু মুহূর্ত।

Advertisement


ছোট বেলায় প্রথম হাতে ছুঁয়ে ফুটবল দেখেছিলেন তিনি। বড় হয়ে সেই বিদেশি খেলাকে দেশি মোড়কে সাজিয়ে নতুন করে পরিবেশন করেছেন বাঙালির কাছে। ইংরেজ শাসকের সঙ্গে সংঘাতেও যেতে হয়েছিল যার জন্য। এবং শেষ পর্যন্ত জয় বাঙালির জেদের, সাহসিকতার, স্বদেশ প্রেম আর ফুটবলের। টিজার বলছে, ছোট নগেন্দ্রপ্রসাদের ভূমিকায় অভিনয় করেছে নেতাজি ধারাবাহিক খ্যাত অঙ্কিত মজুমদার। 'রিল স্ত্রী' ঈশা সাহা।

২০১৯-এর নভেম্বরের মাঝামাঝি যুবভারতী স্টেডিয়ামে অভিনেতা-সাংসদ দেব, পরিচালক ধ্রুব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রযোজক এসভিএফ একযোগে জানিয়েছিলেন, এ দেশে ফুটবলের পথিকৃৎ নগেন্দ্রপ্রসাদ সর্বাধিকারীর জীবন নিয়ে ছবি তৈরি হবে। নাম ‘গোলন্দাজ'। সেখানে মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করবেন সাংসদ-তারকা। নিজেকে নিখুঁত ফুটবলার করে তুলতে দেব সেই সময় প্রশিক্ষণ নিয়েছিলেন ফুটবল তারকা ভাইচুং ভুটিয়ার কাছে।

Advertisement