Advertisement
২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪
Viral

বানভাসি কাজিরাঙা, প্রাণ বাঁচাতে বেডরুমে আশ্রয় নিল বাঘ!

বৃহস্পতিবার একটি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, বাঘটি ঘরের মধ্যে ঢুকে পড়েছে। ছবি দেখে মনে হচ্ছে সে একটি বিছানা দখল নিয়েছে

ঘরে ঢুকে পড়েছে বাঘ। ছবি : টুইটার থেকে নেওয়া।

ঘরে ঢুকে পড়েছে বাঘ। ছবি : টুইটার থেকে নেওয়া।

সংবাদ সংস্থা
গুয়াহাটি শেষ আপডেট: ১৮ জুলাই ২০১৯ ১৬:৩৫
Share: Save:

বন্যায় ভয়াবহ পরিস্থিতি অসমের কাজিরাঙায়। সব থেকে বেশি বিপদে পড়েছে বন্য পশুরা। বিশাল এলাকা জলে ডুবে যাওয়ায়, না পাচ্ছে থাকার জায়গা, না আছে খাদ্য।জল থেকে বাঁচতে যেখানেই একটু উঁচু জায়গা পাচ্ছে আশ্রয় নিচ্ছে পশুরা। আর তাতে বিপদ আরও বাড়ছে মানুষের। কাজিরাঙার এমনই এক ছবি ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। একটি ঘরে ঢুকে বিছানায় উঠে পড়তে দেখা গেল একটি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারকে।

ওয়াইল্ড লাইফ ট্রাস্ট নামে এক টুইটার হ্যান্ডলে বৃহস্পতিবার একটি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগারের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, বাঘটি ঘরের মধ্যে ঢুকে পড়েছে। ছবি দেখে মনে হচ্ছে সে একটি বিছানা দখল নিয়েছে। সেখানেই ক্লান্ত শরীরে শুয়ে রয়েছে। ছবিগুলির সঙ্গে পোস্টে লেখা হয়েছে, বাঘটিকে ঘুমপাড়ানি গুলি করে বের করার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ছবিগুলি বাড়ির দেওয়াল বা জানালার ফাঁক দিয়ে তোলা হয়েছে।

জল থেকে বাঁচতেই জঙ্গল থেকে বেরিয়ে আসে বাঘটি। কাজিরাঙার কাছে জাতীয় সড়কের পাশে একটি লোকালয়ে ঢুকে পড়ে। বাঘটিকে ঢুকতে দেখে আতঙ্কে চিত্কার করেন স্থানীয়রা। আর তা শুনে সতর্ক হয়ে যান ওই বাড়ির মালিক। ফলে বড় বিপদ এড়ানো গিয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন : খেতে পারতেন না, ওজন কমেছিল ২৬ কেজি, এবার ঘরে ফিরতে চাইছেন ঋষি কপূর

আরও পড়ুন : জলের তোড়ে ভেসে যাচ্ছে কাজিরাঙ্গার গণ্ডার শাবক, উদ্ধারের ভিডিয়ো ভাইরাল

বন দফতরের কর্মীরা জানিয়েছেন, বাঘটিকে ঘুম পাড়ানি গুলি করে নিরাপদে উদ্ধার করা হয়েছে। আর টুইটার ব্যবহারকারীদের কেউ কেউ মন্তব্য করেছে, বন্যার সঙ্গে লড়াই করতে করতে বাঘটি ক্লান্ত ও ক্ষুধার্ত হয়ে পড়েছে।

বনকর্মীরা বলছেন, কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যানের প্রায় ৯৫ শতাংশ এলাকা জলের ঢুকে গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত ৩০টি পশু মারা গিয়েছে চলতি সপ্তাহে।দু’বছর আগে বন্যায় প্রায় ৩৬০টি পশু মারা গিয়েছিল। যার মধ্যে ৩১টি গণ্ডার ও ১টি বাঘ ছিল।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement

Share this article

CLOSE