পাকিস্তানের বালুচিস্তানে বাস থেকে নামিয়ে ১৪ জনকে গুলি করে হত্যা করল মুখোশধারী বন্দুকবাজরা। প্রাথমিক ভাবে জানা গিয়েছে, যে দলটি হামলা চালিয়েছে, তারা পাক সেনার পোশাক পরে ছিল। ঘটনার কড়া নিন্দা করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী। ইমেলে বিবৃতি দিয়ে ঘটনার দায় স্বীকার করেছে বিচ্ছিন্নতাবাদী বালোচ গোষ্ঠীদের সশস্ত্র বাহিনীর জোট।

বৃহস্পতিবার ভোরে পাকিস্তানের করাচি থেকে বালুচিস্তানের গ্বাদরের দিকে যাচ্ছিল যাত্রীবোঝাই বাসটি। মাকরান কোস্টাল হাইওয়ে দিয়ে যাওয়ার সময় ওরমারা শহরের কাছে বাসটিকে থামায় মুখোশধারী জঙ্গিরা। তাদের পরনে ছিল সেনার পোশাক। বাসটিকে থামিয়ে যাত্রীদের নামিয়ে এনে গুলি করে তারা।

বালোচ বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সশস্ত্র সংগঠন ‘বালোচ রাজি আজোই সঙ্গার’ তাদের বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘‘বেছে বেছে পাক সেনা এবং পাক উপকূলরক্ষী বাহিনীর সদস্যদের আমরা হত্যা করেছি। পরিচয়পত্র দেখে নিশ্চিত হওয়ার পরেই হত্যা করা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: মাসুদ নিয়ে ‘বোঝাপড়া’ চলছে, রাষ্ট্রপুঞ্জে প্রস্তাব না আনতে আমেরিকাকে হুঁশিয়ারি চিনের

পাক স্বরাষ্ট্রসচিব হায়দর আলি সংবাদসংস্থাকে জানিয়েছেন, ‘‘হামলাকারীরা সংখ্যায় ছিল প্রায় দু’ডজন। ওরা প্যারামিলিটারি ফ্রন্টিয়ার কোরের-এর পোশাক পরেছিল। মৃতেরা সবাই পাক নাগরিক। এখনও পর্যন্ত জানতে পেরেছি, মৃতদের মধ্যে এক জন পাক সেনা এবং এক জন পাক উপকূলরক্ষী বাহিনীর সদস্য।’’

গ্বাদর শহরের স্বাস্থ্যকেন্দ্রের চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, ‘‘বুলেটের আঘাতেই সকলের মৃত্যু হয়েছে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মাথায় গুলি করা হয়েছে।’’

আরও পড়ুন: কংগ্রেসের প্রস্তাবে ট্রাম্পের ভিটো

পাক সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, বন্দুকধারী হামলাবাজদের ধরতে তদন্ত শুরু হয়েছে। যদিও হামলার পরই তারা ঘটনাস্থল ছেড়ে পালায় বলে জানিয়েছে পাক সরকার। বিবৃতি দিয়ে ঘটনার কড়া নিন্দা করেছেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান