নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে আরও এক বার ফোনে কথা হল মার্কিন প্রেসি়ডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের। হোয়াইট হাউস সূত্রে খবর, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং আফগানিস্তানে রণকৌশল নিয়েই সোমবার রাতে কথা হয়েছে এই দুই রাষ্ট্রপ্রধানের। পরস্পরকে নতুন বছরের শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন মোদী ও ট্রাম্প। গত নভেম্বরে আর্জেন্টিনায় জি-২০ বৈঠকের পরে এই প্রথম কথা হল দু’জনের।

আমদানির ক্ষেত্রে আমেরিকা চড়া হারে সুদ বসানোয় নয়াদিল্লির সঙ্গে ওয়াশিংটনের বাণিজ্য অনেকটাই কমে গিয়েছে। কী ভাবে এই বাণিজ্য ঘাটতি মেটাতে যায়, তা নিয়ে মোদী-ট্রাম্পের কথা হয়েছে বলে জানিয়েছে হোয়াইট হাউস। ট্রাম্প প্রশাসনের দাবি, নতুন বছরে বাণিজ্য-সহ সব রকম দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কেই কাঁধ মিলিয়ে চলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান।

আফগানিস্তানে পরবর্তী রণকৌশল ঠিক করা নিয়েও মোদী-ট্রাম্প একমত হয়েছেন বলে দাবি হোয়াইট হাউসের। আফগানিস্তানে শান্তি ফেরানোর কথা সম্প্রতি একাধিক বার বলতে শোনা গিয়েছে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে। এ নিয়ে মধ্যস্থতা করার জন্য পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানকে চিঠিও লেখেন তিনি। সম্প্রতি তাঁর প্রশাসন কাবুল থেকে অর্ধেক সেনা কমানোর প্রস্তাব দিয়েছে। তবে মোদীর সঙ্গে ট্রাম্পের ঠিক কী কথা হয়েছে, তা স্পষ্ট নয়। হোয়াইট হাউস শুধু বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছে, আমেরিকাকে আরও সহযোগিতা করার বিষয়ে রাজি হয়েছে ভারত।

তালিবান জমানা পার করে আফগানিস্তান যাতে ঘুরে দাঁড়াতে পারে, সে জন্য ভারত কিন্তু ইতিমধ্যেই যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে। বিশেষত সে দেশের রাস্তাঘাট, স্কুল-কলেজ ইত্যাদি নির্মাণে ৩০০ কোটি ডলার অর্থসাহায্যের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছে নয়াদিল্লি। ট্রাম্প তবু সুযোগ পেলেই এ নিয়ে ভারতকে ব্যঙ্গ করেছেন বলে অভিযোগ।