গত সপ্তাহেই তাইল্যান্ডে শপথ নিয়েছে নতুন সরকার। প্রধানমন্ত্রী প্রয়ুথ চান-ওচার নেতৃত্বাধীন সেই সরকার ক্ষমতায় আসার পর রবিবার প্রকাশিত হয়েছে তাদের নীতি। সেখানেই মেডিক্যাল ক্যানাবিস শিল্প বিস্তারকে প্রাধান্য দিচ্ছে নবনির্বাচিত এই সরকার। অর্থাৎ চিকিৎসাশাস্ত্রের প্রয়োজনে গাঁজা চাষে জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে ওই ডকুমেন্টে।

তাইল্যান্ডে নবনির্বাচিত ১৯ দলের জোট সরকারের সবথেকে বড় দল ভূমজাইথাই পার্টি। নির্বাচনের আগে থেকেই মেডিক্যাল ক্যানাবিস শিল্পের বিস্তারের দাবি করে এসেছে এই দলটি। সেই দাবিরই অঙ্গ হিসাবে ক্ষমতায় আসার পরই এই সিদ্ধান্ত বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষক মহল। বিষয়টি নিয়ে ভূমথাইজাই দলের প্রধান অনুটিন চার্নভিরাকুল বলেছেন, ‘‘মারিজুয়ানা, হেম্প ও অন্যান্য মেডিক্যাল হার্বে শিল্পের বিস্তার দরকার। এতে জনসাধারণের রোজগারের ব্যবস্থা যেমন হবে তেমন অর্থনৈতির দিকটিও মজবুত হবে।’’ অনুটিন বর্তমানে সে দেশের ডেপুটি প্রধানমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রীও।

যন্ত্রণা থেকে উপশম ও অবসাদ থেকে মুক্তির জন্য মারিজুয়ানা ব্যবহার তাইল্যান্ডে বেশ জনপ্রিয়। এ জন্য মারিজুয়ানার ব্যবহারকে বৈধতা দেওয়া হয়েছিল গত বছর। সেই ব্যবস্থাকেই গতি দিতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রয়ুথ সরকার। যদিও এই বিষয়টি নিয়ে এখনও কোনও ঘোষণা করেনি তাই সরকার। তবে প্রকাশিত পলিসি ডকুমেন্টই বুঝিয়ে দিচ্ছে গাঁজা চাষের বিষয়ে তাঁদের মনোভাব। 

আরও পড়ুন: ১৮ বছর আগে হারিয়ে যাওয়া শিশুকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দিল ফেসঅ্যাপ!

আরও পড়ুন: ছবির মতো সুন্দর এই হ্রদে স্নান করলেই অসুস্থ হয়ে পড়বেন!