• সংবাদ সংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

‘কারা পদে বসিয়েছে?’, গুগল, ফেসবুক, টুইটার কর্তাদের দায়িত্ব নিয়ে তোপ সেনেটরদের

Hearing
বাঁ দিক থেকে মার্ক জুকেরবার্গ, সুন্দর পিচাই এবং জ্যাক ডর্সি।— ফাইল চিত্র

সাইবার আইন সংশোধন নিয়ে আমেরিকার সেনেটের শুনানি হয়ে উঠল রিপাবলিকান এবং ডেমোক্র্যাটদের রাজনৈতিক তরজার মঞ্চ। বুধবার শুরু হয়েছিল ওই বিশেষ শুনানি। তলব করা হয়েছিল ফেসবুক, গুগল, টুইটারের চিফ এগজিকিউটিভ অফিসারদেরও। সেখানেই বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন দুই দলের সেনেটররা। বাদ যাননি ওই তিন সংস্থার সিইও-ও।

ফেসবুক, টুইটার এবং গুগলের মতো সামাজিক মাধ্যমে শালীনতা বজায় রাখার ক্ষেত্রে সংস্থাগুলির দায় কতটা, তা নিয়েই দ্বিধাবিভক্ত হয়ে পড়েন দুই দলের সেনেটররা। বেছে বেছে তাঁদের বক্তব্য সেন্সর করা হচ্ছে বলে ওই সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থাগুলির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন রিপাবলিকান সেনেটররা। শুনানির বেশিরভাগ সময় তাঁরা এ নিয়েই বেশি ব্যস্ত ছিলেন। অন্যদিকে ডোমোক্র্যাটদের বক্তব্য ছিল, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মুখে ‘বিভ্রান্তিমূলক’ পোস্ট করা হলেও তা নিয়ে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিচ্ছে না সংস্থাগুলি।

আমেরিকায় সাইবার আইন (কমিউনিকেশন ডিসেন্সি অ্যাক্ট-এর ২৩০ ধারা) অনুযায়ী, সোশ্যাল মিডিয়ায় কারও রাজনৈতিক বক্তব্যের জন্য সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলিকে দায়ী করা যায় না। সেই আইন সংশোধন নিয়েই এ দিন শুনানি চলছিল। সেই আইনের পক্ষেই এ দিন ব্যাট ধরেন ফেসবুক, টুইটার এবং গুগলের সিইও-রা। তাঁদের মতে, ওই আইন বাকস্বাধীনতা এবং সংযত বক্তব্যের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখে। ওই তিন সংস্থার সিইও-ই ঐক্যমতের ভিত্তিতে জানান, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মগুলিকে প্রকাশনা সংস্থা হিসাবে ধরা হলে কারও বক্তব্যের দায় তাঁদের নেওয়া উচিত। কিন্তু তাঁরা কারও রাজনৈতিক মন্তব্যের ক্ষেত্রে রেফারির ভূমিকা পালন করতে নারাজ। তিন সংস্থার সিইও-দের এই মন্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেন সেনেটর টেড ক্রাজ। টুইটারের সিইও জ্যাক ডর্সির উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘কারা আপনাকে নির্বাচন করেছে এবং এই দায়িত্বে বসিয়েছে?’’ তিনি আরও অভিযোগ করেন, টুইটার কর্তা তাঁর বিপরীত রাজনৈতিক মতের বিশ্বাসীদের চুপ করিয়ে দিচ্ছেন।যদিও তা অস্বীকার করেছেন জ্যাক।

আরও পড়ুন: ফের ফ্রান্সে গলা কেটে খুন, নিসে গির্জা চত্বরে নিহত এক মহিলা-সহ ৩

আরও পড়ুন: যেন মানব শিশু, প্রিয় কম্বল ছাড়া ঘুমতে নারাজ গন্ডার শাবক

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন