Advertisement
১৫ জুলাই ২০২৪
Mark Zuckerberg

মেটার কাজ ছেড়ে খামারে জ়াকারবার্গ, মোহ কাটাতেই কি গোসেবায় মন দিলেন প্রযুক্তি-পিতা?

শুধু গরুকে আদর করে, গলায় হাত না বুলিয়ে নিয়মিত তাদের দামি শুকনো ফল এবং বিয়ারও খাওয়াচ্ছেন জ়াকারবার্গ। হঠাৎ কেন এই কাজে মন দিলেন তিনি?

Meta CEO Mark Zuckerberg feeding cows dry fruits and beer to create some high quality beef in the world.

এ বার জ়াকারবার্গ মন দিয়েছেন গোসেবায়। ছবি: সংগৃহীত।

আনন্দবাজার অনলাইন ডেস্ক
কলকাতা শেষ আপডেট: ১০ জানুয়ারি ২০২৪ ১৪:০৫
Share: Save:

তথ্যপ্রযুক্তি জগতে অন্যতম একটি নক্ষত্র মার্ক জ়াকারবার্গ। মেটা-র জনক মার্কের জীবন নিয়ে সাধারণ মানুষের কৌতূহলও কম নয়। কখনও মডেলিং, কখনও জাপানি মার্শাল আর্ট জুজুৎসু— সবেতেই তিনি সমান পারদর্শী। তবে এ বার তিনি মন দিয়েছেন গোসেবায়। শুধু গরুকে আদর করে, গলায় হাত না বুলিয়ে নিয়মিত তাদের দামি শুকনো ফল এবং বিয়ারও খাওয়াচ্ছেন তিনি। হঠাৎ কেন এই কাজে মন দিলেন মার্ক?

নিজের ইনস্টাগ্রামে মার্ক তাঁর এই নেশার বিষয়ে জানিয়েছেন। হাওয়াই দ্বীপের কাউয়াই এলাকার প্রায় অর্ধেকটাই কিনে ফেলেছেন তিনি। আর সেখানেই গড়ে তুলেছেন তাঁর খামার। তবে মার্কের এই গোসেবার কারণ, ভাল মানের গোমাংসের জোগান দেওয়া। তিনি জানিয়েছেন, মাংসের মান যাতে ভাল হয়, সে কারণেই ওই খামারে ওয়াগিউ এবং অ্যাঙ্গাস প্রজাতির গরু রেখেছেন। প্রতি দিন তাদের উন্নত মানের খাবারও খাওয়ানো হচ্ছে। মাংসের মান উন্নত করার জন্য তাদের বিশেষ এক প্রকার বাদামও খাওয়ানো হয়। মার্ক জানিয়েছেন, প্রতি বছর প্রায় ৫ থেকে ১০ হাজার পাউন্ড খাবার খায় প্রতিটি গরু। তাই জন্য কয়েকশো একর জুড়ে ম্যাকাডেমিয়া গাছের প্রয়োজন। “আমার সঙ্গে আমার মেয়েরাও ম্যাক গাছ লাগাতে এবং গবাদিপশুর যত্ন নিতে সাহায্য করে।” আর এই উদ্যোগই সমাজমাধ্যমে জ়াকারবার্গ সম্পর্কে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার জন্ম দিয়েছে। নেটাগরিকদের মধ্যে এক জন লিখেছেন, “এক দিকে তিনি তার গবাদি পশুর যত্ন নেওয়ার দাবি করছেন, আবার অন্য দিকে তাদের খাবার টেবিলে নিয়ে আসার চিন্তা করছেন?”

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, X (Twitter), Facebook, Youtube, Threads এবং Instagram পেজ)

অন্য বিষয়গুলি:

farm Mark Zuckerberg Meta Cows
সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের মাধ্যমগুলি:
Advertisement

Share this article

CLOSE