Advertisement
০৪ ডিসেম্বর ২০২২
TONGUE

জিভ পুড়ে গিয়েছে‌? নিমেষে আরাম পান এ সব উপায়ে

পুড়ে গেলে জিভের প্রদাহ থেকেই মুখে নানা সংক্রমণ ঘটতে পারে। তাই পুড়ে গেলে তা অবহেলা না করে বরং স্বস্তি আনতে কিছু ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করুন। জানেন সে সব?

জিভ পুড়ে যাওয়া অবহেলা নয়। ছবি: শাটারস্টক।

জিভ পুড়ে যাওয়া অবহেলা নয়। ছবি: শাটারস্টক।

নিজস্ব প্রতিবেদন
শেষ আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০১৮ ১৮:০০
Share: Save:

গরম কিছু খাওয়ার সময় অসাবধানতাবশত অনেকেরই জিভ পুড়ে যায়। অনেকে সতর্ক থাকলেও খাবারটি কতটা গরম তা বুঝে উঠতে পারেন না বলে প্রথম কামড় বা চুমুকেই জিভ পুড়িয়ে ফেলেন।

Advertisement

এতে জিভের স্বাদকোরকগুলি পুড়ে গিয়ে স্বাদগ্রহণ করার ক্ষমতা হারায়। সঙ্গে জিভে জ্বালাও শুরু হয়। পরবর্তী সময়ে অন্য কিছু খাওয়ার সময়ও জিভে জ্বালা ও ব্যথা করে।

অনেক সময়ই আমরা এমন ঘটনাকে আমল দিই না। কষ্ট সহ্য করে নিই। কিন্তু চিকিৎসকদের মতে, জিভ পুড়ে যাওয়াকে সম্পূর্ণ অবহেলা ঠিক নয়। বেশি পুড়ে গেলে জিভের প্রদাহ থেকেই মুখে নানা সংক্রমণ ঘটতে পারে। তাই পুড়ে গেলে তা অবহেলা না করে বরং স্বস্তি আনতে কিছু ঘরোয়া উপায় অবলম্বন করুন।

আরও পড়ুন: যে সোনা কিনছেন, সেটা আদৌ আসল তো?

Advertisement

মধু: অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল ও সংক্রমণ রুখে দেওয়ার ক্ষমতা রাখে মধু। তাই জ্বালা কমাতে মধুর প্রলেপ দিন পোড়া জিভে।

অ্যালোভেরা: পুড়ে গেলে দ্রুত ঠান্ডা কিছু রাখুন জিভে। এর জন্য অ্যালোভেরা খুবই কার্যকর। অ্যালোভেরা ব্যথা যেমন কমাবে, তেমনই জিভে ঠান্ডা ভাব এনে পোড়া জায়গায় আরাম দেবে।

ইতিহাসের পাতায় আজকের তারিখ, দেখতে ক্লিক করুন — ফিরে দেখা এই দিন

আরও পড়ুন: শীতের শুরুতে শিশুকে অসুখ থেকে দূরে রাখতে চান? মেনে চলুন এ সব

গ্রাফিক: শৌভিক দেবনাথ।

বরফ: বরফ রাখুন জিভের পুড়ে যাওয়া অংশে। এতে ঠান্ডা অনুভূতি হবে ও প্রদাহ সারবে দ্রুত। বরফ একান্তই না পেলে ঠান্ডা জলে কুলকুচি করুন বার কয়েক।

সোহাগার খই: সোহাগার খইয়ের সঙ্গে মধু লাগালে মুখের ভিতরের যে কোনও প্রদাহ অনেকটাই কমে যায়। জিভ পুড়লে ব্যবহার করুন এটি।

(সবচেয়ে আগে সব খবর, ঠিক খবর, প্রতি মুহূর্তে। ফলো করুন আমাদের Google News, Twitter এবং Instagram পেজ)
Follow us on: Save:
Advertisement
Advertisement

Share this article

CLOSE
Popup Close
Something isn't right! Please refresh.