• সংবাদসংস্থা
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

বিজেপির ‘ডিজিটাল এডিশন’ তৈরি করেছে করোনা, দাবি মোদীর

Narendra Modi at Seva Hi Sangathan
সেবা হি সংগঠন ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদী— ছবি টুইটার থেকে।

পোশাকি নাম ‘সেবা হি সংগঠন’। আদতে লকডাউন পর্বে বিজেপি নেতা-কর্মীদের কাজের মূল্যায়ন। শনিবার বিকেলে ভিডিয়ো কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে সেই মূল্যায়ন-পর্বে দলীয় সংগঠনের ভূয়সী প্রশংসা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সেই সঙ্গে দিলেন করোনা মোকাবিলা্য ভবিষ্যতের সাংগঠনিক দিশানির্দেশ।  মোদীর কথায়, ‘‘করোনা সংক্রমণের সঙ্কটজনক পরিস্থিতি বিজেপি নেতা-কর্মীদের অনেককেই ডিজিটাল প্রযুক্তির ব্যবহারে পারদর্শী করে তুলেছে। করোনা বিজেপির ডিজিটাল এডিশন তৈরি করে দিয়েছে।’’

আগামী ২৫ সেপ্টেম্বের দীনদয়াল উপাধ্যায়ের জন্মদিবসে করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের সেবায় দলের ভূমিকা নিয়ে একটি ‘ডিজিটাল বুক’ প্রকাশের কথাও ঘোষণা করেন মোদী। বিজেপি পদাধিকারীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘আপনাদের মাতৃভাষা, হিন্দি এবং ইংরেজিতে পুরো কাজ বিস্তারিত ভাবে সংকলিত করতে হবে। কেন্দ্র ও রাজ্য স্তরে এডিটোরিয়াল বোর্ড তা পরিমার্জনের দায়িত্বে থাকবে। মানব সভ্যতার ইতিহাসে এমন ঘটনা আর ঘটেনি। পশ্চিমের কোনও দেশ হলে তো মানুষের শক্তি নিয়ে আলোচনার ধূম পড়ে যেত।’’ তিনি জানান, মণ্ডলস্তরে ডিজিট্যাল লিফলেটে লকডাউন পর্বে দলের জনসেবার কাজ, আমজনতার বেঁচে থাকার লড়াই, তাদের লেখা চিঠি, গান, কবিতা থাকবে। সেগুলি থেকে সংকলিত হবে জেলা ও রাজ্যস্তরের ডিজিটাল বুক।

প্রধানমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘‘আমি নিজে বারাণসীর সাংসদ। সেই সুবাদে সেখানকার বাসিন্দা, রাজ্য সংগঠন এবং রাজ্য সরকারের কাজ ভাল ভাবে পর্যবেক্ষণ করেছি। আপনারা যে ভাবে কর্তব্য পালন করেছেন, তা সত্যিই প্রশংসনীয়।’’ দেশের বিভিন্ন রাজ্যের বিজেপি নেতা-কর্মীরা যে ভাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ভূমিকা পালন করেছেন এবং লকডাউন পর্বে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন তারও প্রশংসা করেন মোদী। তাঁর কথায়, ‘‘সারা পৃথিবীর মানুষ যখন প্রাণরক্ষায় ব্যস্ত, তখন আপনারা যে ভাবে ভয়ের আবহ উপেক্ষা করে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে গরিব দেশবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছেন, তা নজিরবিহীন। আপনারা মানুষের আশীর্বাদ পেয়েছেন। মানুষের আশীর্বাদ দেবতার আশীর্বাদের সমান।’’

আরও পড়ুন: কোন ধাপে রয়েছে করোনা টিকা, কী জানাচ্ছে ভারত বায়োটেক?

মোদীর দাবি, সুখী এবং সমৃদ্ধ ভারত গড়ার আদর্শ থেকেই ভারতীয় জনসঙ্ঘ এবং তার উত্তরসূরি বিজেপির প্রতিষ্ঠা। তাঁর কথায়, ‘‘আমরা সব সময়েই ক্ষমতাকে সেবার মাধ্যম হিসেবে ভেবে এসেছি। সেই আদর্শ থেকেই রাজনীতিতে এসেছি।’’ তিনি জানান, বিজেপির বহু নেতা-কর্মী সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন। অনেকে মারাও গিয়েছেন। কিন্তু তাঁদের অনেকের নামই সংবাদমাধ্যমে আসেনি। তাঁর অঙ্গীকার, ‘‘ওই পরিবারগুলির পাশে দাঁড়ানো আমাদের কর্তব্য।’’

আরও পড়ুন: লেহ্‌ হাসপাতালে সফর না শুটিং? বিতর্কে মুখ খুলল সেনা​

সেবা হি সংগঠন’ ভার্চুয়াল সভায় এদিন হাজির  ছিলেন বিজেপি সভাপতি জে পি নড্ডাও। সেখানে বিভিন্ন রাজ্যের বিজেপি পদাধিকারীরা লকডাউন পর্বে সংগঠনের কাজের খতিয়ান পেশ করেন। মোদী অবশ্য এদিন বলেছেন, ‘‘অন্য রাজনৈতিক দলগুলির মতো আমরা ভোটের কথা ভেবে কাজ করি না। নিরন্তর সাধারণ মানুষের সেবাকেই আমাদের কাজ মনে করি।’’ তবে সেই সঙ্গেই ভোট পাটিগণিতের প্রসঙ্গ তুলে বিজেপির ৫২ জন দলিত, ৪৩ জন আদিবাসী এবং ১১৩ জন ওবিসি সাংসদের কথা বলেছেন তিনি। বলেছেন, বিভিন্ন রাজ্যের বিধায়ক ও দলীয় পদাধিকারীদের মধ্যে বিপুল সংখ্যক পিছড়ে বর্গের প্রতিনিধিদের উপস্থিতির কথাও।

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন