ভারতে অনুপ্রবেশ ঘটাতে অধিকৃত কাশ্মীরের মানুষকে ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে চাইছে পাকিস্তান। সেনা জওয়ানদের বদলে নিরীহ মানুষকে ভারতীয় বাহিনীর গোলাগুলির মুখে ঠেলে দিতে চায় তারা। সেই মতো সেখানকার মানুষকে প্ররোচনা দিতে শুরু করেছে। জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে টানাপড়েনের মধ্যে এমনই অভিযোগ তুললেন ভারতীয় সেনার এক আধিকারিক।

শনিবার সকালেও উপত্যকার পুঞ্চ এবং রাজৌরিতে সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করে পাক বাহিনী। এ দিন রাজৌরির সুন্দরবনিতেই ছিলেন ভারতীয় সেনার নর্দ্যার্ন কমান্ডের লেফটেন্যান্ট জেনারেল রণবীর সিংহ। পাকিস্তানের এই আগ্রাসন নিয়ে সংবাদ সংস্থা এএনআই-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারেই এমন দাবি করে তিনি  বলেন, ‘‘পাক অধিকৃত কাশ্মীরে এমন অনেক নেতা রয়েছেন, যাঁরা স্থানীয় মানুষকে প্ররোচিত করছেন। নিয়ন্ত্রণরেখার কাছাকাছি পৌঁছতে তাঁদের মানব ঢাল হিসাবে ব্যবহার করার চেষ্টা চলছে।’’

তবে ভারতীয় সেনা যে হাত গুটিয়ে বসে নেই, সে কথাও স্পষ্ট জানিয়ে দেন রণবীর সিংহ। তাঁর কথায়, ‘‘পাকিস্তানকে উপযুক্ত জবাব দিতে প্রস্তুত আমরা। এ রকম হলে প্রাণহানি ঘটবেই। সে ক্ষেত্রে পাকিস্তান এবং তাদের সেনাবাহিনীই মৃত্যুমিছিলের জন্য দায়ী থাকবে। এ ভাবে নিরীহ মানুষকে ঢাল হিসাবে ব্যবহার করা একেবারেই উচিত নয়।’’

আরও পড়ুন: ‘হিন্দি বলুন বেশি করে, হিন্দিই পারে দেশের ঐক্য অটুট রাখতে’, অমিতের মন্তব্যে আলোড়ন​

আরও পড়ুন: ‘এটা ইন্ডিয়া না হিন্দিয়া?’ অমিত শাহকে পাল্টা তোপ স্ট্যালিনের, ক্ষোভে ফুঁসছে দক্ষিণ ভারত​

গত বৃহস্পতি বার গভীর রাত থেকে জ্ম্মু-কাশ্মীরে নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর লাগাতার গুলিবর্ষণ করে আসছে পাক সেনা। এ দিন সকাল থেকে পুঞ্চ এবং রাজৌরি সেক্টরেও দফায় দফায় সংঘর্ষবিরতি চুক্তি লঙ্ঘন করেছে তারা। পাল্টা জবাব দিয়েছেন ভারতীয় জওয়ানরাও। সন্ধ্যা পর্যন্ত কোনও প্রাণহানি ঘটেনি বলে জানিয়েছেন পুঞ্চের ডেপুটি কমিশনার রাহুল যাদব। তবে নিরাপত্তার খাতিরে এলাকার মানুষকে নিরাপদ দূরত্বে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।