বরিশালের ইলিশের এই পদে জমে যাক সপ্তাহ শেষের দুপুর

নিজস্ব প্রতিবেদন
বরিশালের ইলিশের এই পদে জমে যাক সপ্তাহ শেষের দুপুর

ইলিশ মাছ মানেই জিভ জল। বর্ষার মরসুমে ইলিশ মাছ খেতে চায় না এমন বাঙালি বোধ হয় খুঁজে পাওয়া ভার। বাংলাদেশ মানেই ইলিশের সম্ভার এটা বললে কিন্তু এ পারের বাঙালিরা রাগ করবেন না। বরিশালে নাকি বাংলাদেশের মধ্যে সবথেকে বেশি ইলিশ মাছ পাওয়া যেত, তাই কলকাতার অভিজাত রেস্তরাঁয় বরিশালি ইলিশ নামের একটি পদের প্রচলন হয়। এই নামে বাংলাদেশে কোনও পদ না থাকলেও এই রেসিপিটি কিন্তু সম্পূর্ণরূপে বাংলাদেশেরই। রইল বরিশালি ইলিশের রেসিপি।

উপকরণ

ইলিশ মাছ ৬টি

কালো সর্ষে এক টেবিল চামচ

হলুদ সর্ষে এক টেবিল চামচ

নারকেল বাটা ৪ টেবিল চামচ

দই ১০০ গ্রাম

কালোজিরে হাফ চা চামচ

কাঁচা লঙ্কা ৫টি

নুন স্বাদ মতো

হলুদ গুঁড়ো ১ চা চামচ

লাল লঙ্কা গুঁড়ো হাফ চা চামচ

সর্ষের তেল ৩ টেবিল চামচ

প্রণালী: মাছগুলিকে হাফ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো ও হাফ চা চামচ নুন দিয়ে মাখিয়ে নিতে হবে। গরম জলে ১৫ মিনিট সর্ষের দানা ভিজিয়ে রাখতে হবে। এরপর অল্প নুন দিয়ে (হাফ চা চামচ) সর্ষে বেটে নিতে হবে। এরপর হাফ কাপ জল মিশিয়ে খোসাগুলি সরিয়ে ফেলতে হবে। দই ভাল করে ফেটিয়ে নিতে হবে। এরপর সর্ষে বাটা, নারকেল বাটা ও দইটা ভাল করে মিশিয়ে নিতে হবে একটি পাত্রে নিয়ে। নুন, লাল লঙ্কার গুঁড়ো, হাফ চা চামচ হলুদ গুঁড়ো, কাঁচা লঙ্কা কুচি দিতে হবে। একটা পাত্র গরম করে তাতে ২ টেবিল চামচ তেল দিতে হবে। কালো জিরে ফোড়ন দিতে হবে তেলে। একটু নেড়েচেড়ে নিতে হবে। এর মধ্যে এবার ওই বাটাগুলো মিশিয়ে নাড়তে হবে। যাতে পাত্রের তলায় ধরে না যায়, দিতে হবে হাফ কাপ জলও। ওই মিশ্রণটা ফুটতে শুরু করলে নুন হলুদ মাখানো মাছগুলি এর মধ্যে দিয়ে দিতে হবে। প্রায় ১০ মিনিট রান্না করতে হবে মাঝারি আঁচে ঢাকা দিয়ে। মাঝে একবার মাছগুলিকে উল্টে দিতে হবে, যাতে দুদিকই সেদ্ধ হয়। এরপর দই-সর্ষের মিশ্রণে ঝোলটা ঘন হয়ে এলে এর মধ্যএ এক টেবিল চামচ সর্ষের তেল দিয়ে আবার পাত্রটা ঢাকা দিয়ে দিন। মিনিট তিনেক মতো রান্না করুন। এর পর গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন বরিশালি ইলিশ।