• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

রাস্তা দেখিয়েছে অ্যাডিলেড, বলে দিলেন কোহালি

Virat Kohli
অদম্য: ২০১৪ অ্যাডিলেড টেস্টের স্মৃতি এখনও তাজা বিরাটের। ফাইল চিত্র

স্মৃতির সরণি বেয়ে ছ’বছর পিছিয়ে গেলেন বিরাট কোহালি। পৌঁছে গেলেন সেই ২০১৪ সালের অ্যাডিলেড টেস্টে। যে টেস্টে কোহালির অবিশ্বাস্য লড়াই ভারতকে একটি অবিস্মরণীয় জয়ের সামনে নিয়ে এসেছিল। সেই টেস্টের ছবি টুইট করে কোহালি এ দিন লিখলেন, ‘‘আবেগে ভরা একটা ম্যাচ ছিল।’’

২০১৪ সালে ৯ থেকে ১৩ ডিসেম্বর, ওই টেস্ট হয়েছিল অ্যাডিলেড ওভালে। যে টেস্টকে অনেকেই বলে থাকেন, ভারত-অস্ট্রেলিয়া টেস্ট ইতিহাসের অন্যতম সেরা ম্যাচ। দু’ইনিংসেই সেঞ্চুরি করেছিলেন কোহালি। ভারতও প্রায় পৌঁছে গিয়েছিল জয়ের কাছে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। কোহালির কাছে সেই টেস্ট ভারতীয় দলের জন্য একটা মাইলফলক হয়ে থাকবে।

মঙ্গলবার টুইটারে ভারত অধিনায়ক লেখেন, ‘‘ওই বিশেষ আর গুরুত্বপূর্ণ টেস্টটার কথা মনে পড়ে যাচ্ছে। আজ আমরা টেস্ট দল হিসেবে যে জায়গায় এসে পৌঁছেছি, সেই যাত্রায় অ্যাডিলেড টেস্ট একটা গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ ছিল।’’ ওই টেস্টে প্রথমে ব্যাট করে অস্ট্রেলিয়া সাত উইকেটে ৫১৭ রান তুলেছিল। জবাবে ভারত করে ৪৪৪। অধিনায়ক কোহালির ব্যাট থেকে আসে ১১৫ রানের ইনিংস। ভাল খেলেছিলেন পুজারা (৭৩), অজিঙ্ক রাহানে (৬২) এবং মুরলী বিজয় (৫৩)। দ্বিতীয় ইনিংসে অস্ট্রেলিয়া পাঁচ উইকেটে ২৯০ রানে ইনিংস ডিক্লেয়ার করার পরে ভারতের সামনে জয়ের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৬৩। একটা সময় দু’উইকেট হারিয়ে ভারত তুলে নিয়েছিল ২৪২ রান। চা বিরতির পরে কম করে ৩৭ ওভারে ১৫৮ রান দরকার ছিল ভারতের। কিন্তু তারা শেষ আট উইকেট হারায় ৭৩ রানে। কোহালি অসাধারণ, লড়াকু ১৪১ রান করে ফিরে আসার পরে শেষ হয়ে যায় ভারতের লড়াই। নেথান লায়ন নেন ১৫২ রানে সাত উইকেট। ভারত হারে ৪৮ রানে।

সেই অ্যাডিলেড-লড়াইয়ের স্মৃতি ফিরিয়ে এনে কোহালি এ দিন টুইট করেন, ‘‘২০১৪ সালের অ্যাডিলেড টেস্ট দু’দলের ক্রিকেটারদের জন্য ভীষণ আবেগপূর্ণ ছিল। দর্শকরাও দারুণ উপভোগ করেছিলেন টেস্টটা। আমরা হয়তো ফিনিশিং লাইনটা পেরোতে পারিনি, কিন্তু ওই টেস্টটা আমাদের বুঝিয়েছিল, সব কিছুই সম্ভব। আমরা এমন একটা কাজ প্রায় করে দেখাচ্ছিলাম যা খুব কঠিন ছিল। কিন্তু সবাই সেই কাজটা করে দেখাতে বদ্ধপরিকর ছিল। টেস্ট দল হিসেবে আমাদের যাত্রা পথে এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক হয়ে থাকবে।’’

সব কিছু ঠিক থাকলে বছরের শেষে আরও একটা অস্ট্রেলিয়া সফরে যেতে হবে কোহালিদের। যেখানে টেস্টের পাশাপাশি সীমিত ওভারের ম্যাচও খেলার কথা ভারতের। অস্ট্রেলিয়ার সীমিত ওভারের ক্রিকেট অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চের মুখে এ দিন শোনা গিয়েছে কোহালির প্রশংসা। তিন ধরনের ক্রিকেটেই ভারত অধিনায়কের দাপট দেখে মুগ্ধ ফিঞ্চ। তিনি বলেছেন, ‘‘সব খেলোয়াড়েরই কখনও না কখনও খারাপ সময় আসে। কিন্তু বিরাট কোহালি, স্টিভ স্মিথ বা অতীতে রিকি পন্টিং, সচিন তেন্ডুলকরের এ রকম সময় গিয়েছে বলে মনেই করা যায় না। এদের কখনও পরপর দুটো সিরিজ খারাপ যায়নি।’’

একটি টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে কোহালির প্রশংসা করে ফিঞ্চ বলেন, ‘‘ভারতের হয়ে খেলাটাই একটা চাপের ব্যাপার। আর তার পাশাপাশি কোহালির উপরে তো দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার চাপটাও রয়েছে। আর সেই চাপ সামলে কোহালি যে ভাবে খেলছে, তা অসাধারণ।’’ ফিঞ্চ আরও বলেন, ‘‘এম এস ধোনির থেকে নেতৃত্বের ব্যাটন তুলে নিয়েছিল কোহালি, যেটা এমনিতেই বিশাল ব্যাপার ছিল। ওর উপরে বিরাট চাপ ছিল। আর সেই চাপ সামলে ধারাবাহিক ভাবে ভাল খেলে চলেছে কোহালি। এটাই খুবই প্রশংসনীয়।’’

আরও পড়ুন: ক্রিকেট বাতিল, ওঁরা কেউ চাষের জমিতে, কেউ দোকানে কর্মী

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন