চলতি অ্যাশেজ সিরিজে নিজের সব চেয়ে কম রানের ইনিংস খেলে রবিবার আউট হয়ে গেলেন স্টিভ স্মিথ (২৩)। স্মিথের ব্যর্থতার দিনে পঞ্চম টেস্ট ১৩৫ রানে জিতল ইংল্যান্ড। জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ৩৯৯ রান তাড়া করতে নেমে চতুর্থ দিন অস্ট্রেলিয়ার ইনিংস শেষ হয়ে গেল ২৬৩ রানে। ম্যাথু ওয়েড করেন ১১৭ রান। ইংল্যান্ডের হয়ে চারটি করে উইকেট নেন স্টুয়ার্ট ব্রড এবং জ্যাক লিচ। 

এই সিরিজে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং পুরোপুরি স্মিথ নির্ভর হয়ে গিয়েছিল। বিশেষ করে ডেভিড ওয়ার্নার ধারাবাহিক ভাবে ব্যর্থ হওয়ায় স্মিথের উপরে পুরো চাপটা এসে পড়ে। কিন্তু ওভাল টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে দলকে টানতে ব্যর্থ হলেন তিনি। এবং, অস্ট্রেলিয়াও হেরে গেল। এর ফলে অ্যাশেজ সিরিজ শেষ হল ২-২ অবস্থায়। কিন্তু শেষ বার সিরিজ জেতার কারণে অ্যাশেজ থেকে গেল অস্ট্রেলিয়ার কাছেই।  

ওয়ার্নার এই ইংল্যান্ড সফর নিঃসন্দেহে ভুলে যেতে চাইবেন। এ দিনও তিনি স্টুয়ার্ট ব্রডের বলে মাত্র ১১ রান করে আউট হয়ে যান। ওয়ার্নার এ রকম খারাপ ফর্মে থাকলেও অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক রিকি পন্টিং মনে করেন, এই বাঁ-হাতি ওপেনারকে দল থেকে বাদ দেওয়ার কোনও প্রশ্নই নেই। তিন জন ব্যাটসম্যানকে তিনি বেছে নিয়েছেন যাঁরা আসন্ন ক্রিকেট মরসুমে অস্ট্রেলীয় দলে নিশ্চিত বলে মনে করেন পন্টিং। অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘ওয়ার্নার শেষ ইনিংসে কত করল, সেটা বিচার্য নয়। আমার মতে, ও দলে নিশ্চিত। মার্নাস (লাবুশানে) খুব ভাল খেলেছে। ওকে রাখতে হবে। আর স্মিথ নিয়ে বলার কিছু নেই।’’ 

ইংল্যান্ড অধিনায়ক জো রুট বলে গেলেন, ‘‘এই সপ্তাহে আমরা দারুণ ক্রিকেট খেলেছি। এই ম্যাচে টস হেরেছিলাম। কিন্তু কখনও ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাত থেকে চলে যেতে দিইনি।’’ ইংল্যান্ডের পক্ষে সিরিজের সেরা প্লেয়ার নির্বাচিত হয়েছেন বেন স্টোকস। অস্ট্রেলিয়ার স্মিথ। পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এসে স্মিথ বলে যান, ‘‘দারুণ একটা সময় গেল। অ্যাশেজ দেশে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে পেরে আমি গর্বিত।’’