• নিজস্ব প্রতিবেদন
সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে

মনোবিদ চাই, বলছেন ধোনি

ms dhoni
ফাঁস: শুরুতে দ্বিধায় ভোগেন, জানালেন ধোনিও। ফাইল চিত্র

চাপের মুখে তাঁর বরফের মতো মাথা ঠান্ডা রাখার ক্ষমতার কথা ক্রিকেট দুনিয়ায় কারও অজানা নেই। যে কারণে তাঁর নামই হয়ে গিয়েছে ‘ক্যাপ্টেন কুল’। কিন্তু সেই মহেন্দ্র সিংহ ধোনি জানাচ্ছেন, তিনিও চাপে পড়েন, তিনিও ভয় পান। অবাক শোনালেও সত্যি, ধোনি বলে দিচ্ছেন, দলের সঙ্গে সব সময় মনোবিদ রাখা একান্তই জরুরি। যাতে মনের দিকটা সামলানোর উপযুক্ত প্রক্রিয়া মজুত থাকে। 

একট সংস্থার তরফে কথা বলতে গিয়ে ধোনি বলেছেন, ‘‘ভারতে এখনও মানসিক দুর্বলতার ব্যাপারটা ঠিক মতো গ্রহণ করা হয় না। বরং এই ব্যাপারটাকে বলা হয়, মানসিক সমস্যা।’’ সংস্থার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, লকডাউনের আগে বিভিন্ন কোচের সঙ্গে আলোচনায় এই মন্তব্য করেছিলেন ধোনি।

ব্যাট করতে নামলে তিনিও যে চাপের মুখে পড়েন, তা সেই আলোচনায় স্বীকার করেছেন ধোনি। ছক্কা মেরে ভারতকে বিশ্বকাপ জেতানো অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘কেউ এটা বলে না, কিন্তু ঘটনা হল, প্রথম পাঁচ থেকে দশটা বল খেলার সময় আমার হৃদস্পন্দনও বেড়ে যায়। আমিও চাপে পড়ে যাই, আমিও ভয় পাই। এটা কিন্তু সবার ক্ষেত্রেই হয়।’’ এর পরেই ধোনির প্রশ্ন, ‘‘তা হলে এই চাপটা সামলাতে গেলে কী করতে হবে?’’

 আরও পড়ুন: ‘আমিও চাপ অনুভব করি’, স্বীকার করলেন ধোনি 

জবাবটা সেই ধোনিই দিয়েছেন। ভারতের হয়ে ৫০ ওভার এবং টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা অধিনায়ক বলেছেন, ‘‘এটা খুব ছোট সমস্যা। কিন্তু বেশির ভাগ সময়েই দেখা যায় আমরা এই সব নিয়ে কোচেদের সঙ্গে খোলাখুলি কথা বলি না। যে কারণে কোচ এবং এক জন খেলোয়াড়ের মধ্যে সম্পর্কটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সেটা যে-কোনও খেলার ক্ষেত্রেই খাটে।’’

গত বছর বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে হারের পর থেকে আর বাইশ গজে দেখা যায়নি ধোনিকে। সবাই আশা করেছিলেন, আইপিএলে আবার ধোনি-ধামাকা দেখা যাবে। কিন্তু করোনাভাইরাসের আক্রমণে আইপিএল অনির্দিষ্ট কালের জন্য পিছিয়ে গিয়েছে। বাকিদের মতো পরিবারের সঙ্গে ঘরবন্দি হয়ে আছেন ধোনিও। প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক মনে করেন, ক্রিকেটে মনোবিদদের যথেষ্ট গুরুত্ব আছে। ধোনি বলেছেন, ‘‘মেন্টাল কন্ডিশনিং কোচেরা ১৫ দিনের জন্য এসে আবার চলে গেল, এ রকম হলে কিন্তু চলবে না। কারণ ১৫ দিনের জন্য এলে এক জন কোচ শুধু তাঁর নিজের অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নিতে পারেন, তার বেশি কিছু হয় না।’’ প্রসঙ্গত, ধোনির ভারতীয় দল ওয়াংখেড়েতে বিশ্বকাপ জেতার সময় তাঁদের সঙ্গে ছিলেন মেন্টাল কন্ডিশনিং কোচ প্যাডি আপটন।  

আরও পড়ুন: আউট হয়ে ফেরার সময় পার্থিবকে ঘুসি মারার হুমকি দেন হেডেন!

ধোনির মন্তব্য, ‘‘এক জন মেন্টাল কন্ডিশনিং কোচ যদি নিয়মিত খেলোয়াড়দের সঙ্গে থাকেন, তা হলে তিনি বুঝতে পারবেন সেই সব খেলোয়াড়ের সমস্যাটা ঠিক কী হচ্ছে।’’ মনোবিদদের গুরুত্বের কথা এর আগে বিরাট কোহালিও বলেছিলেন। ভারত অধিনায়ক বলেছিলেন, ‘‘শুধু খেলাতেই নয়, আমার মনে হয় জীবনের ক্ষেত্রেও মানসিক স্বচ্ছতা এবং মানসিক শক্তি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।’’

এ দিকে, ধোনিকে নিয়ে আশিস নেহরা বলেছেন, ‘‘সিএসকে-তেই হোক কী ভারতীয় দলে, ধোনি নিজের বার্তাটা ঠিক সংশ্লিষ্ট ক্রিকেটারের কাছে পৌঁছে দিত। তাতেই ওই ক্রিকেটার বুঝে যেত, অধিনায়ক তার কাছ থেকে কী চাইছে।’’ 

(অভূতপূর্ব পরিস্থিতি। স্বভাবতই আপনি নানান ঘটনার সাক্ষী। শেয়ার করুন আমাদের। ঘটনার বিবরণছবিভিডিয়ো আমাদের ইমেলে পাঠিয়ে দিন, feedback@abpdigital.in ঠিকানায়। কোন এলাকাকোন দিনকোন সময়ের ঘটনা তা জানাতে ভুলবেন না। আপনার নাম এবং ফোন নম্বর অবশ্যই দেবেন। আপনার পাঠানো খবরটি বিবেচিত হলে তা প্রকাশ করা হবে আমাদের ওয়েবসাইটে।)

সবাই যা পড়ছেন

সব খবর প্রতি সকালে আপনার ইনবক্সে
আরও পড়ুন

সবাই যা পড়ছেন

আরও পড়ুন