ওভালে শুক্রবার নেট বোলার খলিল আহমেদকে পুল করতে গিয়ে ডান হাতে চোট পেয়েছিলেন ভারতীয় ক্রিকেট দলে তামিলনাড়ুর অলরাউন্ডার বিজয় শঙ্কর। চিন্তা  বেড়েছিল ভারতীয় শিবিরে। কিন্তু ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই স্বস্তি ফিরল বিরাট কোহালির দলে। জানা গিয়েছে, ডান হাতের হাড় ভাঙেনি বিজয়ের।

শনিবারই বিজয়ের ডান হাতের স্ক্যান রিপোর্ট এসে পৌঁছায় ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টের কাছে। যেখানে বলা হয়েছে, ডান হাতের হাড় ভেঙে বড় চোট হয়নি বিজয়ের। শুক্রবার ডান হাতে চোট পাওয়ার পরে মাঠ ছেড়ে চলে গিয়েছিলেন বিজয়। কিন্তু এ দিন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড টুইট করে জানিয়ে দেয়, ‘‘ডান হাতে চোট পাওয়া বিজয় শঙ্করের স্ক্যান করানো হয়েছিল। বিজয়ের হাতের হাড় ভাঙেনি। ভারতীয় ক্রিকেট দলের চিকিৎসক দল দ্রুত তাঁকে সুস্থ করার প্রচেষ্টা জারি রেখেছে।’’

শনিবার বিশ্বকাপের প্রথম প্রস্তুতি ম্যাচ ছিল ভারতের। নিউজ়িল্যান্ডের বিরুদ্ধে যে ম্যাচে খেলতে পারেননি শঙ্কর। মঙ্গলবার বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কার্ডিফে ভারতীয় দলের দ্বিতীয় প্রস্তুতি ম্যাচেও তিনি অনিশ্চিত। তবে এ দিন ম্যাচের আগে ভারতীয় দলের নেটে দেখা গিয়েছে বিজয়কে। যেখানে বল ছুড়ে অনুশীলন করানো হয় তাঁকে। সেখানে এক হাতে ব্যাট করতে দেখা গিয়েছে বিজয়কে। 

ম্যাচে অবশ্য ৭৭ বল বাকি থাকতেই ছয় উইকেটে জেতে নিউজ়িল্যান্ড। হারলেও ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহালি হতাশ নন। বলছেন, ‘‘৫০ রানে চার উইকেট চলে যাওয়ার পরে ১৭৯ রানে শেষ করেছি। ব্যাটসম্যানদের প্রচেষ্টার প্রশংসা করছি। শুরুতে পিচ যে রকম আচরণ করেছে, তা আমাদের বল করার সময় সম্পূর্ণ অন্য আচরণ করল। আসলে তখন পিচে কিছু ছিল না। এটাই ইংল্যান্ডের পরিবেশ।’’ সঙ্গে যোগ করেন, ‘‘বিশ্বকাপের মতো প্রতিযোগিতায় কোনও কোনও সময় প্রথম দিকের ব্যাটসম্যানরা রান পাবে না। আজও সে রকম হয়েছে। সেই পরিস্থিতিতে হার্দিক রান করেছে। ধোনি চাপটা সামলে দেয়। সবার উপরে জাডেজার অর্ধশতরান। এই ম্যাচ থেকে এগুলোই ইতিবাচক।  ফিল্ডারদের আরও দক্ষতা দেখাতে হবে। ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিংয়ে উন্নতি করতে হবে।’’