বাংলাদেশ ক্রিকেটের অচলাবস্থা কাটাতে ভরসা সেই বহু যুদ্ধের সৈনিক মাশরফি মোর্তাজা। বাংলাদেশের একটি দৈনিকের খবর অনুযায়ী, মঙ্গলবার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়কের কাছ থেকে ক্রিকেটারদের ধর্মঘট সম্পর্কে বিস্তারিত শুনেছেন।

সব শোনার পরে মাশরফির উপরেই বরফ গলানোর দায়িত্ব দিয়েছেন হাসিনা। তবে মাশরফি বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের সঙ্গে ইতিমধ্যেই কথা বলেছেন কি না জানা যায়নি। মাশরফিকে ফোনে ধরার চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি। হোয়াটসঅ্যাপেরও জবাব দেননি। বাংলাদেশ ক্রিকেটমহলের খবর অনুযায়ী, এ দিন বিকেলে বোর্ড কর্তাদের সঙ্গে কয়েক জন বিদ্রোহী ক্রিকেটার কথা বলতে পারেন। বিসিবি-র সিইও নিজামউদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘‘আজ যে কোনও মুহূর্তে আমাদের সঙ্গে বৈঠকে বসবে ক্রিকেটাররা।’’ এই আসন্ন বৈঠক নিয়েই আশার আলো দেখছে বাংলাদেশ ক্রিকেট।

সোমবার শাকিব আল হাসানরা ধর্মঘটের ডাক দেন। বোর্ডের সামনে তাঁরা ১১ দফা দাবি পেশ করেন। তাঁরা সাফ জানিয়ে দেন, দাবি না মানা হলে মাঠে নামবেন না। বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের এ হেন দাবির পরে ভারত সফর নিয়ে তৈরি হয় অনিশ্চয়তা।

আরও পড়ুন: ১১ দাবি শাকিবদের, না মানলে ধর্মঘটের ডাক, অনিশ্চিত ভারতের বিরুদ্ধে সিরিজ

৩ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশের ভারত সফর। ৩০ অক্টোবর ঢাকা থেকে নয়াদিল্লি যাওয়ার বিমান ধরার কথা বাংলাদেশ ক্রিকেটাররা। বরফ গলানোর দায়িত্ব প্রধানমন্ত্রী মাশরফির উপরে অর্পণ করার পরেই আশার আলো দেখছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট-ভক্তরা। ২৫ তারিখ থেকে ভারত সফরের জন্য প্রস্তুতি ক্যাম্প শুরু হচ্ছে। ফলে হাতে বেশি সময়ও নেই ক্রিকেটারদের। বুধবার বিকেলের পরেই গুমোট ভাব কেটে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। কঠিন সময় কাটিয়ে ওঠার জন্য আরও একবার মাঠে নামলেন মাশরফি।  

আরও পড়ুন: বোর্ড প্রেসিডেন্ট হলেন সৌরভ, টুইট করল বিসিসিআই